ঢাকা, শনিবার 18 March 2017, ০৪ চৈত্র ১৪২৩, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সাকিবের সেঞ্চুরিতে বিদেশে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের লিড

শততম টেস্টে সেঞ্চুরির পর মোসাদ্দেককে জড়িয়ে ধরেন সাকিব আল হাসান। মোসাদ্দেক দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭৫ রান করেন -ইন্টারনেট

রফিকুল ইসলাম মিঞা: শততম টেস্টের তৃতীয় দিনটা ভালোই কাটাল বাংলাদেশ। দেশের বাইরে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ পেয়েছে সর্বোচ্চ রানের লিড। শ্রীলংকার করা ৩৩৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ করেছে ৪৬৭ রান। আর প্রথম ইনিংসে টাইগাররা লিড নিয়েছে ১২৯ রানের। শততম টেস্টে দলের পক্ষে সেঞ্চুরি করে নিজেকে আরো ওপরে নিয়ে গেলেন সাকিব আল হাসান। সাকিব সেঞ্চুরিসহ করেছেন ১১৬ রান। সাকিবের সেঞ্চুরি আর সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম ও মোসাদ্দেকের হাফ সেঞ্চুরির ওপর নির্ভর করেই শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশ ৪৬৭ রান করতে পেরেছে। শ্রীলংকার করা ৩৩৮ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিনে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১৪ রান করেছিল বাংলাদেশ। গতকাল তৃতীয় দিন খেলতে নেমে বাংলাদেশ বাকি ৫ উইকেটে দলের স্কোরটা নিয়ে গেছে ৪৬৭ রানে। আর একটি সেঞ্চুরি ও তিনটি হাফসেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে রেকর্ড গড়ে লিড নিয়েছে। কারণ বিদেশের মাটিতে প্রথম ইনিংসে এটাই তাদের সর্বোচ্চ লিড। ২০১৩ সালে জিম্বাবুয়ের মাটিতে ১০৯ রানের লিড ছিল এতদিন সবচেয়ে বড় লিড।

গতকাল বাংলাদেশকে ৪৬৭ রানে অলআউট করে ১২৯ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নেমে কোন উইকেট না হারিয়ে ১৩ ওভারে ৫৪ রান করেছে শ্রীলংকা। ফলে শ্রীলংকা এখনও পিছিয়ে আছে ৭৫ রানে। দিমুথ করুনারতেœ ও উপুল থারাঙ্গা- দুই বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানই অপরাজিত ২৫ রানে। ব্যক্তিগত ১১ রানে শুভাশীষের বলে মুশফিকের হাতে জীবন পান করুনারতেœ। না হলে তৃতীয় দিনে একটি উইকেট পেতে পারত বাংলাদেশ। এর আগে ৫ উইকেটে ২১৪ রানে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। সাকিব ১৮ রানে আর মুশফিক ২ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামেন। তৃতীয় দিনে এই জুটির ওপরই ভরসা ছিল বাংলাদেশের। তবে মুশফিক ও সাকিবের ব্যাটেই গতকাল স্বস্তিতে ফিরেছে বাংলাদেশ। কারণ প্রথম দুই সেশনটা দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের নৈপুণ্যে ভালোই করেছে। বিশেষ করে সাকিব সেঞ্চুরি করে দলকে ভালোই এগিয়ে নিয়েছে। শ্রীলংকার প্রথম ইনিংসে করা ৩৩৮ রানের জবাবে দ্বিতীয় দিন দারুণ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ সেশনে মাত্র ৬ রানের ব্যবধানে তিন উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। সেই বিপদ থেকে তৃতীয় দিন দলকে টেনে তুলেছেন অধিনায়ক মুশফিক ও সাকিব। শতাধিক রানের জুটি গড়ার পথে ছিলেন তারা। কিন্তু দলীয় ২৯০ রানে মুশফিক আউট হওয়ায় সেটা আর হয়নি। তবে আউট হওয়ার আগে মুশফিক ক্যারিয়ারের ১৭তম ফিফটি পান। ৬৬তম বলে একটি বাউন্ডারি মেরে পঞ্চাশ করেন অধিনায়ক মুশফিক। এর পর আর দুটি রান যোগ করে ৫২ রানে সুরাঙ্গা লাকমলের বলে বোল্ড হন তিনি। তার ইনিংস সাজানো ৮১ বলে ৬টি চারে। আর সাকিবের সঙ্গে তার জুটিটি ছিল ৯২ রানের। মুশফিক আউট হওয়ার কিছুক্ষণ পর সাকিব ফিফটি পান। ৬৯ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন এ অলরাউন্ডার। পরের পঞ্চাশ রান করতে তিনি আরও ৭৪ বল খেলেন। সেঞ্চুরি করতে সাকিব মুশফিকের সঙ্গে ৯২ ও মোসাদ্দেককে নিয়ে ১৩১ রানের জুটি গড়েন গড়েই দলকে এগিয়ে নেন। আর বাংলাদেশের শততম টেস্টে ১৪৩তম বলে নবম বাউন্ডারি মেরে সেঞ্চুরি পূরণ করেন এ অলরাউন্ডার। আর ১১৬ রানে লাকশান সান্দাকানের বলে দিনেশ চান্ডিমালের ক্যাচ হন। ১৫৯ বলে ১০ চারে সাজানো ছির তার ১১৬ রানের। সাকিব আউট হলেও অষ্টম উইকেটে দলকে এগিয়ে নেন মোসাদ্দেক। মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে অষ্টম উইকেটে ৩৩ রানের জুটি গড়েন মোসাদ্দেক। এই জুটি ভাংগেন রঙ্গনা হেরাথ। হেরাথের আঘাতেই পরপর আউট হন মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমান। মেরাজ ২৪ রান করলেও মুস্তাফিজ ছিলেন রান শূন্য। মিরাজকে রিভিউতে এলবি আউট করার পর মুস্তাফিজকেও লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন হেরাথ। আর এর মধ্যে দিয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে হাজার উইকেট পূরণ করলেন লঙ্কান অধিনায়ক। দলীয় ৪৬৭ রানে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন মোসাদ্দেক। ব্যক্তিগত ৭৫ রানে একটু এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে রঙ্গনা হেরাথের বলে স্ট্যাম্পিং হন মোসাদ্দেক। আর এতেই শেষ হয় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। এর আগে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে সুরাঙ্গা লাকমলকে চার মেরে দলকে লিড এনে দেন মোসাদ্দেক। ৮৪ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্টে ফিফটি বরেন ৬ চার ও ১ ছয় মেরে। অভিষেক ম্যাচে ৮ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে সেরা ইনিংসের মালিকও হন তিনি। গতকাল সকালের সেশনে ২৮ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ১০২ রান যোগ করে বাংলাদেশ। ২২ রানে পিছিয়ে থেকে লাঞ্চে যায় সফরকারীরা। ফিরে এসে সাকিব ও মোসাদ্দেকের জুটিতে লিড নেয় মুশফিক বাহিনী। দ্বিতীয় সেশনেও দাপট ধরে রেখেছিল তারা। লাঞ্চ থেকে চা বিরতি পর্যন্ত ২৬ ওভার খেলে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ১১২ রান করে বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ সেশনে ১৩ রানের ব্যবধানে শেষ তিন উইকেট হারায় বাংলাদেশ। না হলে স্কোরটা আরো বড় হতে পারতো।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

শ্রীলংকা ১ম ইনিংস: ৩৩৮/১০

বাংলাদেশ: ১ম ইনিংস: ১৩৪.১ ওভারে ৪৬৭ (তামিম ৪৯, সৌম্য ৬১, ইমরুল ৩৪, সাব্বির ৪২, তাইজুল ০, সাকিব ১১৬, মুশফিক ৫২, মোসাদ্দেক ৭৫, মিরাজ ২৪, মুস্তাফিজ ০, শুভাশীষ ০*; লাকমল ২/৯০, পেরেরা ০/১০০, হেরাথ ৪/৮২, গুনারতেœ ০/৩৮, সান্দাকান ৪/১৪০)

শ্রীলংকা ২য় ইনিংস: ১৩ ওভারে ৫৪/০ (করুনারতেœ ২৫*, থারাঙ্গা ২৫*; শুভাশীষ ০/১৩, মিরাজ ০/২০, মুস্তাফিজ ০/৬, সাকিব ০/৬, মোসাদ্দেক ০/৫)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ