ঢাকা, শুক্রবার 24 March 2017, ১০ চৈত্র ১৪২৩, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পুলিশের অন্যায় আচরণ দেশে  ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে - ছাত্রশিবির

 

ঢাকা, রাজশাহী, কুষ্টিয়া, রাঙ্গামাটি ও কক্সবাজারসহ সারাদেশে নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার এবং হয়রানির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। 

গতকাল বৃহস্পতিবার যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, ছাত্রদের শিক্ষাজীবন নষ্ট ও স্বাভাবিক জীবযাত্রাকে বাধাগ্রস্থ করতে সরকার অগণতান্ত্রিক আচরণ করছে। একের পর এক গ্রেফতার করছে নিরাপরাধ নেতাকর্মী ও সাধারণ ছাত্রদের। গত বুধবার রাজশাহীর বিভিন্ন মেস থেকে ২৯ জন নেতাকর্মী ও সাধারণ ছাত্রকে  গ্রেফতার করে পুলিশ। কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলা থেকে গ্রেফতার করা হয় ১২ শিবির নেতাকর্মীকে। এর আগে গত ১৯ তারিখ একইভাবে রাঙ্গামাটি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে শিবির নেতা হারুনুর রশিদসহ ৬ নেতাকর্মীকে। এছাড়া গত ২০ মার্চ কুষ্টিয়ায় শিক্ষা সফর থেকে কোন কারণ ছাড়াই গ্রেফতার করা হয়েছে ৬৫ নেতাকর্মীকে। গ্রেপ্তারের পর তাদের সাথে বিস্ফোরক জুড়ে দিয়ে নাটক সাজিয়েছে পুলিশ। এভাবে প্রায় প্রতিদিনই অন্যায়ভাবে শিবির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে।

তারা বলেন, ঢাকাতে বিভিন্ন মেস ও বাসাতে অভিযান চালিয়ে সাধারণ ছাত্রদের হয়রানি করা হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর আচরণ যখন সর্বমহলে প্রশ্নবিদ্ধ, ঠিক তখনই নিজেদের অপকর্মকে আড়াল করতে ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার ও হয়রানি করছে। পুলিশের এই অন্যায় আচরণ দেশে এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। গ্রেফতারকৃতরা প্রত্যেকেই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র। এই গণগ্রেফতারের ফলে তাদের শিক্ষাজীবন ব্যাহত হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ অপ্রত্যাশিত ও অগ্রহণযোগ্য। এই রাজনৈতিক নিপীড়নে দেশবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। নেতৃদ্বয় সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এই অন্যায় আচরণের তীব্র নিন্দা জানান।

নেতৃদ্বয় বলেন, শিবির নেতাকর্মী ও সাধারণ ছাত্রদের গণহারে গ্রেপ্তার সম্পূর্ণ অন্যায় ও অযৌক্তিক। সরকারের এই অমানবিক কাজ তাদের ফ্যাসিবাদী আচরণের বহিঃপ্রকাশ ছাড়া কিছু নয়। এসব অগণতান্ত্রিক ও মানবাধিকার লংঘনকারী আচরণ সরকারে জন্য ভাল ফল বয়ে আনবে না। অবিলম্বে গ্রেপ্তারকৃত নিরাপরাধ ছাত্রদের মুক্তি দিতে হবে। গণগ্রেপ্তার বন্ধ করতে হবে। বিনা কারণে গণগ্রেপ্তার চালিয়ে অবৈধ ক্ষমতা দীর্ঘায়িত করা যাবেনা। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ