ঢাকা, শুক্রবার 24 March 2017, ১০ চৈত্র ১৪২৩, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্রের ৩ জায়গায় গোলাগুলী পুলিশসহ ৪ জন নিহত

 

সংগ্রাম ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে বন্দুকধারীর গুলীতে এক পুলিশসহ চারজন নিহত হয়েছেন। একটি বিবাদের ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বুধবার অঙ্গরাজ্যটির তিনটি এলাকায় এ গোলাগুলী হয়। এভারেস্ট মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রধান ওয়ালি স্পার্কসের বরাতে খবরটি জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

স্পার্কস বলেন, দায়িত্বপালনরত অবস্থায় এক পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। একে ‘পারিবারিক বিবাদ’জনিত ঘটনা বলে দাবি করেছে পুলিশ। ইতোমধ্যে ওই সন্দেহভাজন হামলাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানায়, গত বুধবার ওয়াসাউ এর ছোট একটি শহরে এই হামলা শুরু হয়। এদিন রথসচাইল্ড এলাকার ম্যারাথন সেভিংস ব্যাংকে প্রথম হামলা চালানো হয়। দুই ব্যক্তিকে খুঁজতে ব্যাংকে হাজির হন সন্দেহভাজন হামলাকারী। এরপর তাদেরকে গুলী করলে ঘটনাস্থলে তারা নিহত হন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ব্যাংকে আসতে আসতে পালিয়ে যায় ওই হামলাকারী।

এর দশ মিনিট পরই একটি ল ফার্ম থেকে গোলাগুলীর অভিযোগ আসে। এরপর বেলা দেড়টার দিকে ওয়েসটনের একটি অ্যাপার্টমেন্টে গুলী চালানো হয়। এক প্রত্যক্ষদর্শী নারী জানান, গুলীর শব্দে তিনি জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে এক পুলিশকে মাটিতে লুটিয়ে পড়তে দেখেন।

ওয়াসাউ এর পুলিশ ক্যাপ্টেন টপ ব্যাটেন বলেন, এটা খুবই জটিল একটি মামলা। তিনটি স্থানে একই ব্যক্তি হামলা চালিয়েছেন। আমরা তদন্ত করে দেখছি।’

তবে নিহত পুলিশ কিংবা অন্যদের পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এই হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কেও কিছু নিশ্চিত করে বলেননি এভারেস্ট মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রধান ওয়ালি স্পার্ক। তিনি বলেন, উইসকনসিনের ডিপার্টমেন্ট অফ জাস্টিস এর তদন্ত করছে।

রয়টার্স জানায়, গুলীবর্ষণের ঘটনার পর ওয়েস্টন শহরের একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে এক সন্দেহভাজনকে গেপ্তার করে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে গেছে পুলিশ।  

উইসকনসিনের স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রথসচাইল্ডের ম্যারাথন সেভিংস ব্যাংকে গুলীবর্ষণ করা হয় বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তা টড বায়েতেন। ব্যাংকটি থেকে গুলীতে নিহত দুই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ, কিন্তু সন্দেহভাজন গুলীবর্ষণকারী পালিয়ে যায়।   

দুপুর ১টা ১০ মিনিটের দিকে স্কোফিল্ডের একটি ল ফার্মে গুলীবর্ষণ করা হয়। 

এর প্রায় ২০ মিনিট পর ওয়েস্টনের একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভবন থেকে পুলিশের কাছে একটি ফোন আসে। ওই ফোনের সূত্রধরে পুলিশ ওই অ্যাপার্টমেন্ট ভবনটিতে উপস্থিত হয়। এখানে আরো গোলাগুলীর পর ওই সন্দেহভাজন গুলীবর্ষণকারীকে গ্রেফতার করে হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ।  

গ্রেফতার সন্দেহভাজন এবং নিহতদের পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ