ঢাকা, শনিবার 25 March 2017, ১১ চৈত্র ১৪২৩, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কাগজপত্র বিনষ্ট করা হয়েছে কিনা তা অবশ্যই বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা উচিত -ডা. শফিকুর রহমান

 

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অর্থ চুরির এক বছরের মাথায় গত ২৩ মার্চ রাতে ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগে (এফইপিডি) রহস্যজনকভাবে আগুন লেগে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান বলেন, রিজার্ভ অর্থ চুরির ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার জন্যই বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগে পরিকল্পিতভাবে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে কাগজপত্র বিনষ্ট করা হয়েছে কিনা তা অবশ্যই বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে দেখা উচিত বলে দেশবাসী মনে করে।

গতকাল শুক্রবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অর্থ চুরির এক বছর অতিক্রান্ত হলেও এখনো সেই টাকা বাংলাদেশ ফেরত পায়নি এবং ঐ ঘটনায় জড়িত রাঘব-বোয়ালদেরও চিহ্নিত করে বিচার করা হয়নি। তারা এখনো ব্যাংকে বহাল তবিয়তেই আছেন। দৈনিক পত্রিকা মারফত জানা গিয়েছে যে, অগ্নিকা-ের ফলে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল, নথি ও কম্পিউটার পুড়ে গিয়েছে। তাই বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগে রহস্যজনকভাবে আগুন লাগার ঘটনায় দেশবাসী উদ্বিগ্ন ও শঙ্কিত। 

উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অর্থ চুরির ঘটনার তদন্ত শেষ হলেও তদন্ত কমিটির রিপোর্ট আজ পর্যন্ত জাতির সামনে প্রকাশ করা হয়নি। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অর্থ চুরির ঘটনার তদন্ত রিপোর্ট জাতির সামনে আদৌ প্রকাশিত হবে কিনা সে ব্যাপারে জনমনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। তাই অবিলম্বে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ অর্থ চুরির ঘটনার তদন্ত রিপোর্ট জাতির সামনে প্রকাশ করা হোক। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগে রহস্যজনকভাবে আগুন লেগে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে দেখার জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ