ঢাকা, বুধবার 29 March 2017, ১৫ চৈত্র ১৪২৩, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

গ্রেফতার ও লুটপাট আড়াল করতে পুলিশ পরিকল্পিতভাবে নাটক সাজিয়েছে -ছাত্রশিবির

রাজধানী থেকে অন্যায়ভাবে ৫ শিবির কর্মীকে গ্রেফতার, তাদের কাছ থেকে বিস্ফোরক ও জিহাদী বই উদ্ধার নাটক এবং রিমান্ডে নেয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।
গতকাল মঙ্গলবার দেয়া যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, পরিকল্পিতভাবে নিরীহ ছাত্রদের শিক্ষাজীবন ধ্বংসের নির্মম খেলার মেতে উঠেছে সরকার। গত ২৬ মার্চ রাতে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পশ্চিম রাজাবাজার এলাকার এক বাসা থেকে কোন কারণ ছাড়াই গ্রেফতার করা হয় ঢাকা কলেজের ছাত্র সাইফুল ইসলাম, শাহজাহান খন্দকার, মাসুদ রানা, নাইম ইসলাম ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মো. সোলায়মানকে। এ সময় বাসা থেকে তাদের দুটি ল্যাপটপ, নগদ অর্থ ও অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। তাদেরকে একদিন আটক রেখে আজ তাদের সাথে বিস্ফোরক ও জিহাদী বই জুড়ে দিয়ে নাটক সাজিয়েছে পুুলিশ। নিরপরাধ মেধাবী ছাত্রদের প্রতি পুলিশের এই দায়িত্বহীন আচরণের নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। এই বিস্ফোরক উদ্ধার নাটকের সাথে ছাত্রদের কোন সম্পর্ক নেই। অন্যায় গ্রেফতার ও লুটপাট আড়াল করতে পুলিশ পরিকল্পিতভাবে এই নাটক সাজিয়েছে। একই সাথে তাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। নিরীহ ছাত্রদের অন্যায়ভাবে আটকের পর এমন নিকৃষ্ট নাটক সুগভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলে সচেতন দেশবাসী মনে করে। নেতৃদ্বয় এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
নেতৃদ্বয় বলেন, এসব নোংরা নাটকের সাথে ছাত্রশিবিরের দূরতম কোন সম্পর্ক নেই। অপকর্ম ধামাচাপা দিতে পুলিশ কতৃক এমন ঘৃণ্য নাটকের অবতারণা করা হয়েছে। পুলিশের এই প্রতিহিংসাপূর্ণ তামাশায় বহু মেধাবী ছাত্রের শিক্ষা জীবন আজ ধ্বংসের মুখে। নেতৃদ্বয় অবিলম্বে নাটক বন্ধ করে নিরপরাধ ৫ শিবির কর্মীর মুক্তি দিতে প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ