ঢাকা, বুধবার 29 March 2017, ১৫ চৈত্র ১৪২৩, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কেরানীগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলায় একই পরিবারের ৫ জন আহত

গত রোববার রাতে কেরানীগঞ্জ কুলচরে সন্ত্রাসী হামলায় আহত হন রাশিদা (৩১), আবদুল কাইয়ুম (২৯) -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : জমিজমার বিরোধ ধরে এক পরিবারের পাঁচজনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে প্রতিবেশি অপর একটি পরিবার। এ ঘটনার পর ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা উল্টো প্রাননাশের হুমকীতে ঘরবাড়ি ছেড়েছেন। থানা পুলিশ করেও কোন লাভ হয়নি। পুলিশ মামলার সূত্র ধরে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। আদালত তাদেরকে জামিন দেয়। এরপর তাদের লম্ফঝম্ফ আরও বেড়েছে। কারণ, তারা প্রভাবশালী। ঘটনাটি রাজধানীর উপকন্ঠ কেরানীগঞ্জের কুলচর এলাকায় ঘটে।
কুলচরের আব্দুল হাইয়ের ছেলে মো: আব্দুল কাইয়ুম (২৯) জানান, গত ২৬ মার্চ সন্ধ্যা ৭ টার দিকে তাদের প্রতিবেশি মো: বিল্লাল (৩৫) পিতা : ফজলুল করিম, নাদিম ( ২৫ ) পিতা : মহি উদ্দীন ও ময়না (২৭ ) স্বামী : বিল্লালদের সাথে জমিজমার বিরোধের জের ধরে তারা ২০ থেকে ২৫ জনের ভাড়াটে সন্ত্রাসী নিয়ে তাদের বাড়িতে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালায়। দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রসহ লাঠিসোঁটা লোহার রড দিয়ে বড় ভাই মো: গাফ্ফার এর ওপর হামলে পড়ে। এ সময় তার চিৎকার শুনে অন্যরা এগিয়ে এলে তাদের ওপরও হামলা চালানো হয়। এ সময় তাদের হামলায় ছোট বোন রাশিদা, সাবেরা আক্তার, বোন জামাই বাবুল আহত হয়। খবর পেয়ে পাড়া প্রতিবেশিরা এগিয়ে এলে তাদের সামনেই বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতিসহ প্রাণ নাশের হুমকী দেয়া হয়। এ ঘটনায় আহতদেরকে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন থানায় লিখিত অভিযোগ জানানো হলে সেটি মামলা হিসেবে দায়ের  করে থানা পুলিশ। পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিল্লাল ও নাদিমকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। ওই দিনই আদালত তাদেরকে জামিন প্রদান করে। এরপর থেকে তারা এলাকায় গিয়ে আরও সংঘবদ্ধ হয়ে তাদেরকে উপর্যপুরী প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে চলেছে। প্রাণভয়ে তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে জানান আব্দুল কাইয়ুম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ