ঢাকা, বুধবার 29 March 2017, ১৫ চৈত্র ১৪২৩, ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পল্লীচিকিৎসক হত্যা মামলা ৫ দিনের রিমান্ডে রাজীব

গাইবান্ধা সংবাদদাতা : জেলার পলাশবাড়ী উপজেলায় পল্লীচিকিৎসক মাহবুবর রহমান হত্যা মামলায় জঙ্গি নেতা জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় গাইবান্ধা অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক জয়নাল আবেদিন এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) শফিকুল ইসলাম শফিক জানান, পল্লীচিকিৎসক মাহবুবর রহমান ডিপটিকে ২০১৫ সালের ২ জুন বিকেলে জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের গ্রামে গুলী করে হত্যা করা হয়।
ওই মামলায় রাজীব গান্ধীকে বিকেলে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন পুলিশের সিআইডি শাখার সদস্যরা। শুনানি শেষে বিচারক পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
ঢাকার গুলশান হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী রাজীব গান্ধীর বাড়ি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম রাঘবপুর এলাকার ভূতমারি গ্রামে। তার বাবার নাম মাওলানা ওসমান গণি ম-ল।
সোলার প্যানেল বিতরণ : ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরের গাইবান্ধা জেলা পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে সাঘাটা উপজেলায় মসজিদ, মন্দির, বাজার এলাকা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৮৮টি সোলার প্যানেল বিতরণ করা হয়। সাঘাটা বাজার এলাকায় জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর সামনে গাইবান্ধা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আতাউর রহমান আতা প্রধান অতিথি থেকে সোলার প্যানেল বিতরণ করেন।
এ সময় আলোচনা সভায় শিক্ষাবিদ জামিল আহমেদ চৌধুরির সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. একেএস মাহাবুবুর রহমান, জেলা পরিষদের সদস্য জরিদুল ইসলাম, শুক্কুর আলী, লুবমিলা পারভীন ছন্দা, সামসুজ্জোহা, সাকোয়াত হোসেন, জেলা পরিষদের প্রকৌশলী এবিএম সিদ্দিকুর রহমান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন, সাবেক ইউপি চেয়াম্যান ডা. আব্দুর রউফ, ব্যবসায়ী গৌতম কুমার চন্দ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।
জেলা পরিষদের চেয়াম্যান তার বক্তব্যে বলেন, গাইবান্ধা জেলাকে একটি মডেল জেলা হিসেবে সাঁজানোর সবধরণের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। জেলা পরিষদের যতটুকু সম্পদ আছে তার যথাযথ ব্যবহার করে সকল উপজেলায় সমান উন্নয়ন করা হবে বলেও তিনি জানান। আগামীতে যে সব এলাকায় এখনো বিদ্যুৎ পৌচ্ছে নাই সেসব এলাকায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জেলা পরিষদ থেকে সোলার প্যানেলের ব্যবস্থা করা হবে। তবে অগ্রাধিকার পাবে মসজিদ, মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হাট-বাজার এলাকা। তিনি জেলার সকল স্তরের জনগণকে সাথে নিয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ