ঢাকা, বৃহস্পতিবার 30 March 2017, ১৬ চৈত্র ১৪২৩, ০১ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর চিঠিতে শুরু হলো ব্রেক্সিটের আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া

২৯ মার্চ, বিবিসি : ইউরোপীয ইউনিযনকে (ইইউ) উদ্দেশ্য করে লেখা এক চিঠিতে স্বাক্ষর করে ব্রেক্সিটের অনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। বুধবার ওই চিঠি ইউরোপীয কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্কের কাছে হস্তান্তর করা হবে।
লিসবন চুক্তির আর্টিকেল ৫০ অনুসারে ইইউ কর্মকর্তাদের চিঠি দিচ্ছে ব্রিটেন। থেরেসা মে স্বাক্ষরিত চিঠিটি হস্তান্তর করবেন ইইউ-তে ব্রিটেনের রাষ্ট্রদূত টিম বারো। এর পরই শুরু হবে এই বিচ্ছেদের দুই বছরব্যাপী আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া ও আলোচনা। গতকাল বুধবার দুপুরে থেরেসা মে মন্ত্রীসভার বৈঠকে পার্লামেন্ট সদস্যদের উদ্দেশ্যে একটি বিবৃতি দেয়ার কথা। যেখানে তার তাদের অবহিত করার কথা যে, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বিদাযরে সময গণনা শুরু হযেেছ।
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয থেকে জানানো হযেেছ যে, তিনি আলোচনার সময যুক্তরাজ্যের প্রতিটা মানুষের প্রতিনিধিত্ব করবেন, যাদের মধ্যে ব্রিটেনে বসবাসরত ইইউ নাগরিকরাও রযেেছন। ব্রেক্সিটের ফলে তাদের ভাগ্যে কী হবে সেটি এখনো অনিশ্চিত। গতবছরের জুনে এক গণভোটে ব্রিটেনের ইইউ থেকে বেরিযে যাওযার সিদ্ধান্ত দেয ব্রিটিশ নাগরিকরা। থেরেসা মে তার বক্তব্যে ব্রেক্সিট ঘিরে যে বিভক্তি তৈরি হযেেছ, তা থেকে উত্তরণের বিষযওে কথা বলবেন। এদিকে, বিরোধী দল লেবারের নেতা, জেরেমি করবিন বলেছেন, ইইউ থেকে বেরিযে যাওযার সিদ্ধান্ত তার দল সম্মান করে, তবে সরকারের প্রতিটি পদক্ষেপের দিকেই তারা নজর রাখবে। আর্টিকেল ৫০ দুই পক্ষকেই একটি চুক্তিতে পৌছানোর জন্য দুই বছর সময দেবে। যদি দুই পক্ষই আলোচনার মেয়াদ বাডাতে সম্মত না হয, তবে ২০১৯ সালের ২৯ মার্চ ইইউ থেকে ব্রিটেনের বিদায়ের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ