ঢাকা, বৃহস্পতিবার 30 March 2017, ১৬ চৈত্র ১৪২৩, ০১ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

গাঁজার বৈধতা দিতে জাস্টিন ট্রডো একি করছেন

২৯ মার্চ, ইনডিপেনডেন্ট : কানাডার সরকার ২০১৮ সালের মধ্যে গাঁজা উৎপাদন, বাসাবাড়িতে সীমিত আকারে চাষ এবং বিনোদনমূলক সেবন বৈধ করার কথা ভাবছে। দেশটির সরকার আগামী মাসেই এ বিষয়ে একটি আইন করার ঘোষণা দিতে যাচ্ছে বলে ব্রিটিশ দৈনিক ইনডিপেনডেন্টের খবর।  গাঁজার বৈধতা দেওয়া ছিল প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর অন্যতম নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। ২০১৫ সালের নভেম্বরে ট্রুডোর লিবারেল পার্টি বিপুল ভোটে নির্বাচনে বিজয়ী হয়।  সেসময় দলটি বলেছিল, মাদককে শিশুদের নাগালের বাইরে রাখতে এবং অপরাধীদের লাভের বখরা কমাতে মারিজুয়ানার ব্যবহারকে বৈধতা দিয়ে এর উৎপাদন ও ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নিয়ে আসা প্রয়োজন। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী গত বছরের ডিসেম্বরে ফেডারেল সরকারের একটি টাস্ক ফোর্স গাঁজা আইনের নিয়ম কানুন ঠিক করে একটি প্রতিবেদন প্রস্তুত করে। কানাডিয়ান ব্রডকাস্টিং করপোরেশনের (সিবিসি) বরাত দিয়ে ইনডিপেনডেন্ট লিখেছে, নতুন আইনে গাঁজা উৎপাদন করতে চাইলে লাইসেন্স নিতে হবে। ১৮ বছরের বেশি বয়সী যে কেউ বিনোদনমূলক ব্যবহারের জন্য গাঁজা কেনার অনুমতি পাবেন। তবে প্রদেশগুলো চাইলে এই বয়সসীমা আরও বাড়াতে পারবে।  নাগরিকরা নিজেদের বাসাবাড়িতেও গাঁজার চাষ করতে পারবেন, তবে সীমিত আকারে। প্রতি বাড়িতে সর্বোচ্চ চারটি গাছ রাখার অনুমতি দেওয়া হবে। গাঁজার দাম নির্ধারণ এবং বেচাকেনার প্রক্রিয়ার নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা নতুন আইনে প্রাদেশিক সরকারগুলোর হাতে দেওয়া হবে বলে ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। তবে আইন পাসের আগ পর্যন্ত গাঁজার যে কোনো ব্যবহার কানাডায় ‘অবৈধই’ থাকছে বলে জানিয়েছেন জাস্টিন ট্রুডো। চলতি মাসের শুরুতে তিনি বলেন, “যতক্ষণ পর্যন্ত মারিজুয়ানা নিয়ন্ত্রণের কাঠামো ঠিক না হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত বর্তমান আইনই বলবৎ থাকছে।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ