ঢাকা, সোমবার 03 March 2017, ২০ চৈত্র ১৪২৩, ০৫ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শিল্প কারখানায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সহায়তা করবে ইউনিডো

স্টাফ রিপোর্টার : কান্ট্রি  প্রোগ্রামের আওতায় জাতিসংঘের শিল্প উন্নয়ন সংস্থা (ইউনিডো) বাংলাদেশের চামড়া, কৃষিভিত্তিক হালকা প্রকৌশল ও অটোমোবাইল শিল্পখাতের উন্নয়নে কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সহায়তা করবে। এ ছাড়া বাংলাদেশের শিল্প কারখানায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনার  ক্ষেত্রেও সহায়তা করতে আগ্রহী ইউনিডো।
গতকাল রোববার শিল্প মন্ত্রণালয়ে ইউনিডোর আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল ও শ্রীলংকা সম্পর্কিত আঞ্চলিক অফিসের প্রধান রেনে ভ্যান বারকের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সফররত এক উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সঙ্গে বৈঠককালে এ সহায়তার প্রস্তাব দেন। বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ, ইউনিডোর এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রোগ্রাম অফিসার প্রকাশ চন্দ্র মিশ্র, বাংলাদেশ প্রতিনিধি ড. জাকি উজ জামান প্রমুখ।
এ ছাড়া বৈঠকে ইউনিডোর পক্ষ থেকে বাংলাদেশের চামড়া, ডেইরি ফুড, পশুপালন, কৃষিভিত্তিক পণ্য, বিদ্যুৎ, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, জ্বালানি দক্ষতা, পাট, তৈরি পোশাক ও হস্তশিল্পসহ বিভিন্নখাতের উন্নয়ন, খাদ্য নিরাপত্তা জোরদার ও খাদ্যের গুণগতমান উন্নয়নে ইউনিডো বাস্তবায়িত বিভিন্ন কর্মসূচির বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়।
এ সময় ইউনিডোর প্রতিনিধিদলের সদস্যরা বাংলাদেশের শিল্পখাতে সাম্প্রতিক গুণগত পরিবর্তনের প্রশংসা করে বলেন, জ্ঞানভিত্তিক শিল্পখাত বিকাশের চলমান ধারা অব্যাহত রেখে বাংলাদেশ অচিরেই মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে।
তারা বাংলাদেশের জাতীয় শিল্পনীতি-২০১৬ এবং জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য (এসডিজি) এর আলোকে বাংলাদেশের শিল্পখাতে ইতিবাচক পরিবর্তনের জন্য খাতভিত্তিক চাহিদার আলোকে কান্ট্রি প্রোগ্রাম গ্রহণ করতে সরকারের সমর্থন কামনা করেন।
শিল্পমন্ত্রী ইউনিডোকে বাংলাদেশের শিল্পখাতের গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন অংশীদার হিসেবে উল্লেখ বলেন, বাংলাদেশে টেকসই ও পরিবেশবান্ধব শিল্পখাতের উন্নয়নে ইউনিডো ইতিমধ্যে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে।
আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর শিল্পখাত বিকাশের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত রূপকল্প-২০২১ এবং রূপকল্প-২০৪১ বাস্তবায়ন করতে ইউনিডোর আরো কারিগরি সহায়তাও কামনা করেন মন্ত্রী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ