ঢাকা, শুক্রবার 07 March 2017, ২৪ চৈত্র ১৪২৩, ০৯ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

পোশাক খাতে কর্পোরেট কর ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব বিকেএমইএ’র

 

স্টাফ রিপোর্টার:করপোরেট ট্যাক্স ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব জানিয়েছে বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিকেএমইএ)। একইসঙ্গে উৎসে কর শূণ্য দশমিক ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব জানিয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সম্মেলন কক্ষে প্রাক-বাজেট আলোচনায় এ প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এনবিএর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই আলোচনাসভায় বিকেএমইএ’র প্রতিনিধিত্ব করেন সংগঠনটির প্রথম সহ-সভাপতি এ এইচ আসলাম সানি।

আসলাম সানি বলেন, বিশ্বের কোথাও উৎসে কর নেই। তারপরেও বাংলাদেশে একই পণ্যের উপর বিভিন্ন ধাপে একাধিকবার উৎসে কর আদায় করা হচ্ছে। পোশাক রফতানিকারক যার কাছ থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করছেন তিনিও উৎসে কর প্রদান করছেন। এর ফলে একই পণ্যের উপর সামষ্টিক এই করের পরিমাণ নির্ধারিত হারের চেয়ে বেশি হচ্ছে। লাভ ক্ষতি যাই হোক পোশাক রফতানিকারকের কাছ থেকে ‘এফওবি’ মূল্যের উপর উৎসে কর আদায় করা হচ্ছে। এমতাবস্থায় শুধুমাত্র সিএম এর উপর শূণ্য দশমিক ৫ শতাংশ চূড়ান্ত উৎস আয়কর নির্ধারণ করার জন্য এনবিআর চেয়ারম্যানের কাছে প্রস্তাব করেন। একইসঙ্গে করপোরেট ট্যাক্সকে ১০ শতাংশ হারে নির্ধারণ করার আবেদন জানান।

তিনি জানান, বাংলাদেশের জাতীয় আয়ে নীট শিল্পের প্রত্যক্ষ অবদান ১৫-১৬ শতাংশ। এই খাতের মাধ্যমে সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি বেকারত্ব হ্রাস পাচ্ছে। এই খাতটিকে আরও এগিয়ে নিতে ভ্যাট ও আয়করের হার বর্তমান পরিস্থিতির সাথে সমন্বয়ের প্রয়োজন।

তিনি আরও জানান, গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ ৪ শতাংশ নিট প্রবৃদ্ধির উপরে যেতে পারছে না। সাম্প্রতিক সময়ে ১৫ শতাংশ গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি এর মূল কারণ। এর ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য প্রতিযোগিতায় সক্ষমতা হারাতে হচ্ছে। এ জন্য এনবিআর ও সর্বোপরি সরকারের কাছ থেকে বাংলাদেশ নিটশিল্পের জন্য বিশেষ নীতিগত সহায়তা আশা করেন।

নীটওয়্যার কারখানায় নিরাপত্তা নিশ্চিত ও ঝুঁকিমুক্ত পরিবেশ বজায় রাখতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ শুল্কমুক্তভাবে আমদানির সুযোগ দেওয়া দরকার বলে জানিয়েছেন আসলাম সানি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ