ঢাকা, শনিবার 08 March 2017, ২৫ চৈত্র ১৪২৩, ১০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

গো-রক্ষকদের মুসলিম হত্যা অন্ধ বর্বরতা -রাহুল গান্ধী

৭ এপ্রিল, টাইমস অব ইন্ডিয়া : ভারতের বিজেপি শাসিত রাজস্থানের আলওয়ারে স্বঘোষিত গো-রক্ষকদের গণপিটুনিতে পেহলু খান নামে এক মুসলিম নিহত এবং ৪ জন আহত হওয়ার ঘটনায় সংসদে তীব্র প্রতিবাদ করেছে বিরোধী দল কংগ্রেস। গত বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের ভাইস-প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী ওই ঘটনার নিন্দা করে দোষীদের বিরুদ্ধ কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।
গত সোমবার রাতে রাজস্থানের একদল স্বঘোষিত গো-রক্ষকদের গণপিটুনিতে হরিয়ানার নূহ জেলার বাসিন্দা পেহলু খান নামে এক ব্যক্তি হাসপাতালে মারা যান। রাজস্থান থেকে ট্রাকে করে গরু কিনে ফেরার পথে তিনি ও তার সহযোগীরা আক্রান্ত হন। শনিবার রাতে ওই হামলার ঘটনায় আহত ৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গত বৃহস্পতিবার সংসদের উ”চকক্ষ রাজ্যসভায় গো-রক্ষকদের হামলার বিষয়টি উত্থাপন করেন কংগ্রেসের মহাসচিব দিগ্বিজয় সিং। গো-রক্ষার নামে গুণ্ডামি করা হচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।
কংগ্রেসের ভাইস-প্রেসিডেন্ট রাহুল গান্ধী আলওয়ারের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘এটা রাজস্থানের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির মর্মান্তিক ঘটনা। যখন সরকার দায়িত্ব ঝেড়ে ফেলে মারমুখী জনতাকে রাস্তা ছেড়ে দেয়, তখন এ ধরনের বিশাল ট্র্যাজেডি স্বাভাবিক।’
তিনি বলেন, ‘আমি আশা করছি সরকার এ ধরণের নিষ্ঠুর এবং বিবেকহীন হামলার ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।’ ‘সকল শুভবুদ্ধিসম্পন্ন ভারতীয়কে এ ধরণের অন্ধ বর্বরতার নিন্দা করা উচিত’ বলেও রাহুল গান্ধী মন্তব্য করেন। এদিকে, মজলিশ-ই ইত্তেহাদুল মুসলেমিন প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি এমপি গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দাদরিতে মুহাম্মদ আখলাক হত্যা থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত গো রক্ষার নামে ষষ্ঠ মুসলিমকে হত্যা করা হল বলে মন্তব্য করেছেন।
হরিয়ানার বাসিন্দা কিছু লোক গাড়িতে করে গরু নিয়ে যাওয়ার সময় স্বঘোষিত গো-রক্ষকরা একটি জাতীয় সড়কের উপরে তাদের গাড়ি আটকে রেখে হামলা চালায়। গরু বহনকারী গাড়ি রাজস্থানের জয়পুর থেকে হরিয়ানার নূহ জেলার দিকে যাচ্ছিল। অবৈধভাবে গরু পাচারের অভিযোগে গো-রক্ষকরা তাদের উপরে হামলা চালায়। পহেলু খান এবং তার সহযোগীরা গরু ক্রয় সংক্রান্ত সমস্ত বৈধ নথিপত্র দেখানো সত্ত্বেও প্রকাশ্য রাজপথে তাদের উপরে নির্মমভাবে হামলা চালায় ওই গো-রক্ষকরা। ওই ঘটনায় বিভিন্ন মহল থেকে তীব্র প্রতিবাদ এবং নিন্দা জানানো হয়েছে।
ভারতে গো-রক্ষক সংগঠনগুলোর ওপরে নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানো হয়েছে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রীয় সরকার ও ভারতের ৬ রাজ্যকে নোটিশ জারি করে ৩ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে।
ভারতের কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদি সরকার ছাড়াও গুজরাট, রাজস্থান, ঝাড়খ-, মহারাষ্ট্র, উত্তর প্রদেশ এবং কর্ণাটক সরকারকে সুপ্রিম কোর্ট জবাব দিতে বলেছে। আগামী ৩ মে ওই মামলার পরবর্তী শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।
আবেদনকারী বলেছেন, এ ধরণের সংগঠনের বিরুদ্ধে এমন নিষেধাজ্ঞা প্রয়োজন যেরকম ‘সিমি’র মতো সংগঠনের বিরুদ্ধে আরোপ করা হয়েছে। মামলাটির বিগত শুনানিতে আদালত কেন্দ্রীয় সরকার এবং ৬ রাজ্য সরকারের কাছে জবাব চাইলেও জবাব দাখিল না করায় গতকাল শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট ওই ইস্যুতে নোটিশ জারি করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ