ঢাকা, শনিবার 08 March 2017, ২৫ চৈত্র ১৪২৩, ১০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মসজিদে নববীর খতিবের ইমামতিতে বায়তুল মোকাররমে জুমার নামায

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশে সফররত সউদী আরবের পবিত্র মসজিদে নববীর ইমাম ও খতিব শায়খ ড. আবদুল মুহসিন বিন মুহাম্মদ আল কাসিম বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম, এ ধর্মে সন্ত্রাস নেই, জঙ্গিবাদ নেই, মুসলিম সম্প্রদায়ের ঐক্যের মাধ্যমে দেশে শান্তি ফিরিয়ে আনা সম্ভব। 

গতকাল শুক্রবার বায়তুল মুকাররম মসজিদে জুমার খুতবার তিনি এসব কথা বলেন। পরে তিনি এ কথা জুমার নামাযের ইমামতি করেন। গতকালের জুমার নামাযে মুসল্লীদের উপস্থিতি ছিল বেশী। তারচেয়ে বেশি ছিল আইন শৃংখলা বাহিনীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। বায়তুল মোকাররমের চারপাশের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে নির্দিষ্ট রাস্তা দিয়ে মুসুল্লীদের প্রবেশ করতে হয়েছে। আর প্রবেশকালে ব্যাপক তল্লাসীও ছিল।

শায়খ ড. আবদুল মুহসিন বিন মুহাম্মদ আল কাসিম খুতবায় বলেন, ইসলামের সঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। যারা ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে, তাদের সঙ্গেও ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ আমাদের দেশেও চালানো হয়েছে। বিশ্বে মুসলমানরাই সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমনে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি বাংলাদেশের আতিথেয়তার প্রশংসা করেন এবং বাংলাদেশে তাকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য ধন্যবাদ জানান। নামায শেষে মোনাজাতে মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। জুমার নামায শেষে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, নিরাপত্তা, ঐক্য ও কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়। এদিকে, জুমার নামাযকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। বায়তুল মোকাররম ও আশপাশের এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

মসজিদের প্রতিটি গেটে পুলিশ র‌্যাবসহ অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা বেষ্টনী ছিলো চোখে পড়ার মতো। আর্চওয়ে বসিয়ে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে মুসল্লিদের তল্লাশি করে মসজিদের ভেতরে প্রবেশ করানো হয়। এদিকে সকাল ১০টা থেকেই বায়তুল মুকাররম মসজিদে জুমার নামাযে অংশ নিতে ছুটে আসেন মুসুল্লিরা। এসময় আশ-পাশের রাস্তার যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

মসজিদের ৮মতলা পূর্ণ হয়েও স্থান সংকুলান না হওয়ায় রাজপথেও জুমার নামায আদায়ে শরীক হন মুসুল্লিরা। সউদী আরবের পবিত্র মসজিদে নববীর ইমাম ও খতীব শায়খ ড. আবদুল মুহসিন বিন মুহাম্মদ আল কাসিম জুমার নামাযের আগেই বায়তুল মুকাররম মসজিদে উপস্থিত হন। এ সময় তার সাথে পবিত্র মসজিদুল হারাম ও মসজিদুন নববীর ভাইস প্রেসিডেন্ট জেনারেল শায়খ ড. মুহাম্মদ বিন নাসের আল খুজাইমসহ সফররত সৌদী প্রতিনিধিদলের অন্যান্য সদস্যরা তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এমপি, ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এবং উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ জুমার নামায ও মুনাজাতে অংশ গ্রহণ করেন। এর আগে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ আমন্ত্রণে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলেম-ওলামা মহাসমাবেশে অংশ নিতে সৌদি আরবের ৬ সদস্যের প্রতিনিধিদল ঢাকায় আসেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ