ঢাকা, শনিবার 08 March 2017, ২৫ চৈত্র ১৪২৩, ১০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ছুটির দিনেও ব্যস্ত সময় কাটালেন সিলেট সিটি মেয়র আরিফ

 

কবির আহমদ, সিলেট : ছুটির দিনেও ব্যস্ত সময় কাটালেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে মেয়র আরিফ তাঁর কুমারপাড়াস্থ বাসা থেকে বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন ছড়া পরিদর্শন করেন। কয়েকটি সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের পাশাপাশি তিনি নগরীর সাঘরদিঘীরপাড়, আম্বরখানা, মিরাবাজার, সোবহানীঘাটসহ বেশ কয়েকটি এলাকা পরিদর্শন করে মানুষকে পানিবদ্ধতা থেকে দূর করতে নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।

নগরবাসীর সাথে আলাপকালে মেয়র বলেন, ২০১৩ সালে নগরবাসী আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। কিন্তু বিভিন্ন কারণে আমি নগরবাসীর পাশে থাকতে পারিনি। আগামী দিনে নগরের উন্নয়নে আমার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। 

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে নগর ভবনে গিয়ে মেয়রের চেয়ারে বসেন তিনি। এসময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমার প্রতি যে অবিচার করা হয়েছিল, তার বিচার আমি পেয়েছি। সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশে মেয়রের চেয়ারে বসেছি আমি।’ তিনি বলেন, ‘আদালতের নির্দেশে চেয়ারে বসতে পেরেছি এটা ভালো লক্ষণ। আশা করি জনপ্রতিনিধিদের হয়রানিমুক্ত রাখতে সরকার উদ্যোগ নেবে। যে আইনের বলে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের বারবার হয়রানি করা হচ্ছে, এটি সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক মনে হয়। বিষয়টি নিয়ে নীতিনির্ধারকরা ভাববেন আশা করছি।’ বৃহস্পতিবার সকালে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের আদালত হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন। 

গত রোববার সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ। এরপর আরিফের রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত সোমবার সরকারের বরখাস্তাদেশ স্থগিত করেন বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ। সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত হত্যাচেষ্টার মামলার চার্জশিটে নাম থাকায় আরিফকে আবারও সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। দীর্ঘ ২৭ মাস পর রোববারই সিসিকের মেয়রের চেয়ারে ফেরেন তিনি। আর সেদিনই দায়িত্ব নেয়ার ৩ ঘন্টার মধ্যে ফের বরখাস্তের চিঠি পান আরিফ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ