ঢাকা, শনিবার 08 March 2017, ২৫ চৈত্র ১৪২৩, ১০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ফারাক্কা ব্যারাজসহ উজানে ভারতের সব নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ফেলতে হবে

ষ্টাফ রিপোর্টার: ফারাক্কা ব্যারাজসহ উজানে ভারতের সব নদীর বাঁধ ভেঙ্গে ফেলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহবান জানিয়েছেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন(বাপা) নেতৃবৃন্দ। এর পাশাপাশি তিস্তা নিয়ে বন্টন নয় অববাহিকা ভিত্তিক পানি ব্যবহার চুক্তির দাবি জানান তারা। একিই সাথে সুন্দরবন রক্ষায় রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানান তারা।

গতকাল শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবি জানায় বাপা। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাপার সহ-সভাপতি এডভোকেট সুলতানা কামাল, টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান , ডা.আব্দুল মতিনসহ অন্যান্য পরিবেশবাদীরা। 

এডভোকেট সুলতানা কামাল বলেন, আন্তর্জাতিক পানি ব্যবহার বিষয়ক জাতিসংঘ আইনে নদীর পানি বণ্টনের কোনো কথা নেই, পানির ব্যবহারের কথা রয়েছে।

সুলতানা কামাল বলেন, ভারত সফরে তিস্তা চুক্তির সঙ্গে গঙ্গা অবরোধকারী ফারাক্কা বাঁধ খুলে দিয়ে মুক্ত পানি প্রবাহ নিশ্চিত করতে দুই সরকার প্রধানকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। এ সময় সুন্দরবন রক্ষায় রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানান তিনি। 

 সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়,আন্তর্জাতিক পানি ব্যবহার বিষয়ক জাতিসংঘ আইনে নদীর পানি বন্টনের কোনো কথা নেই,পানির ব্যবহারের কথা রয়েছে। দুই বন্ধু রাষ্ট্রের মধ্যকার পানি ভিত্তিক সমস্যার ন্যায়ও জনবান্ধব সমাধানে এই আইনই এক মাত্র অবলম্বন। তাই বাংলাদেশ ভারত মিলে আন্তর্জাতিক পানি প্রবাহ ব্যবহার বিষয়ক জাতিসংঘ আইন ১৯৯৭/২০১৪ অনুসমর্থন ও তার ভিত্তিতে নদী সংরক্ষণ ও ব্যবহার বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ জানান। একই সঙ্গে গঙ্গা অবরোধকারী ফারাক্কা বাঁধ খুলে দিয়ে মুক্ত গঙ্গা প্রবাহ নিশ্চিত করতে দুই সরকার প্রধানকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহবান জানান তারা। 

শুক্রবার সকালে সাত বছর পর প্রথম দ্বিপক্ষীয় সফরে ভারতের রাজধানী দিল্লি যান শেখ হাসিনা। ভারত সফরে দুই দেশের মধ্যে ৩৩টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার সম্ভাবনার কথা সম্প্রতি জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী। তবে এদের মধ্যে তিস্তা চুক্তির বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ