ঢাকা, শনিবার 08 March 2017, ২৫ চৈত্র ১৪২৩, ১০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দাগনভূঞা থানা আবাসন ও পরিবহণ সংকটে পুলিশ

এমএ হায়দার, ফেনী সংবাদদাতা: এইতো সেদিন পেশাগত কাজে গিয়েছিলাম  ফেনীর দাগনভূঞা থানায়। খানিক্ষণ পর একটি ফোন রিসিভ করতে থানা ভবনের পাশে গেলে চোখে লাগে ধোঁয়া, নাকেও খানিকটা দুর্গন্ধ। আরেকটু এগিয়ে যেতে দেখলাম বড় একটি চুলায় চলছে রান্নার কাজ। ভাতের অপসারিত মাড় ও আবর্জনার দূর্গন্ধে পাশ দিয়ে চলার উপায় নেই। জিজ্ঞেস করতেই এক কনস্টেবল বললেন গ্যাস সংযোগ না থাকার কথা। একটু আশ্চর্যই হলাম, একি থানায় গ্যাস সংযোগ নেই! তাও আবার পৌর এলাকা এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়কের পাশের থানায়। আগ্রহ নিয়ে জানতে গেলাম সীমানা প্রাচীরের বাইরে। জানা গেল, অবাক হওয়ার মত তথ্য। থানার সামনে-পেছনে, ডানে-বামে সবদিকেই রয়েছে গ্যাস সংযোগ। শুধু থানায় নেই। এইতো গেল ভেতরের সমস্যা। রয়েছে আবাসিক সমস্যা। যেটুকু আছে তাও প্রয়োজন সংস্কারের। পরিবহণ সংকট আরো তীব্র।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, থানায় কর্মরত পুলিশের আবাসন ও পরিবহণ সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। সংকট-সমস্যায় নাভিশ^াসে ওঠা পুলিশের আবাসন বলতে থানার ওসির একটি ছোট বাসা আর ফোর্সের জন্য দু’টি ব্যারাক। তাও আবার দু’টোরই দরকার মেরামত জানালেন ওসি মো. আসলাম উদ্দিন। পরিবহন বলতে রয়েছে একটি জিপ। পুরনো জিপটিকে ফেলা যায় ফিটনেসহীন পরিবহনের তালিকায়, বৃষ্টিতে পানি পড়ে অঝোরে। বেশির ভাগ সময়ই থাকে বিকল।
ভবনের দোতলায় রয়েছে ফোর্সদের দু’টি ব্যারাক। আনুমানিক আড়াইশ’ বর্গফুটের একেকটি ব্যারাকে রয়েছে ১৭/১৮ জন ফোর্সের আবাসনের ব্যবস্থা। জরুরী মুহূর্তে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যদের থাকার জন্য তৈরী রয়েছে টিন দিয়ে ঘেরাও করা একটি কক্ষ, আর ৬০-৭০ বর্গফুটের একটি কক্ষে থাকেন ২ জন উপ-পরিদর্শক। বলা চলে ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত কারাগারে থাকার মত অবস্থা ব্যারাক দু’টোর। এছাড়া ভবনের অনেকখানি দেয়াল স্যাঁতস্যাঁতে, আবার কোথাও পলেস্তরা খসে পড়ার অপেক্ষায়, ভারি বৃষ্টিতে দু’এক জায়গায় দেয়াল চুঁইয়ে পানি পড়ে ভেতরে।
জানা যায়, থানা প্রতিষ্ঠার সময় তহবিল সংকটে গ্যাসের সংযোগ নেয়া যায়নি। ওসি আসলাম উদ্দিন দায়িত্ব গ্রহণ করার পর উদ্যোগ নিয়ে তহবিল পাশ করিয়ে নিলেও গ্যাস সংযোগ প্রদানে আপত্তি করে বাখরাবাদ। তাছাড়া গ্যাসের সংযোগ দেয়া নিয়ে সরকারের বিধি নিষেধতো রয়েছেই। তীব্র সমস্যা খাবারের পানিরও, অতি মাত্রায় আয়রনের ফলে ৩টি টিউবওয়েল নষ্ট হয়ে পড়ে আছে।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে থানার ওসি মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, যথাসময়ে জনগণের জান মালের নিরাপত্তা বিধানে পরিবহণ সংকট দূর করা দরকার। একইসঙ্গে পুলিশ সদস্যদের নিরাপত্তায় থানা অভ্যন্তরে আবাসিক ভবন নির্মান করা হোক, এজন্য এ থানায় পর্যাপ্ত জায়গা রয়েছে। আমি সরকার ও আমাদের বিভাগের উর্ধ্বতন স্যারদের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ