ঢাকা, মঙ্গলবার 11 March 2017, ২৮ চৈত্র ১৪২৩, ১৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মশা কুকুর মাদকসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত ডিএসসিসির ৪৮ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা

স্টাফ রিপোর্টার : মশা, কুকুর, মাদক, দখলবাজি, বিদ্যুৎ-পানি-গ্যাস সংকটসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৪৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। গতকাল সোমবার যাত্রাবাড়ি পার্কে আয়োজিত ‘জনতার মুখোমুখি জনপ্রতিনিধি’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনের কাছে এসব সমস্যার কথা তুলে ধরেন উপস্থিত এলাকাবাসী। জবাবে মেয়রও ততক্ষণাৎ কয়েকটি সমস্যার সমাধান করেন। কিছু সমস্যা এক-দুমাস পর সমাধানের আশ্বাস দেন। আর কিছু সমস্যা বছর শেষে সমাধান হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন। 

আনোয়ার হোসেন নামে এক এলাকাবাসী বলেন, এলাকায় মাদকের ভয়াবহ অবস্থা। এর সমাধান করার অনুরোধ করেন তিনি। জবাবে মেয়র বলেন, মাদক শুধু যাত্রাবাড়ি নয় সারাদেশের জন্যই অশনিসংকেত। সারাদেশেই মাদক ভয়াবহরূপ ধারণ করেছে। মাদক যুব সমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এ মাদক ব্যবসার সাথে কিছু রাজনৈতিক নেতাকর্মী এবং পুলিশের কিছু সদস্যও জড়িত রয়েছে। এজন্য সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে এটি নির্মূল করতে হবে। 

ইন্দ্রজিত রাজবংশী নামে একজন অভিযোগ করেন, এলাকায় মশার উপদ্রবে থাকা যায় না। ঠিকমত ওষুধ ছিটানো হয়না। লোকজন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে। এর জবাবে মেয়রের নিদের্শে ডিএসসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শেখ সালাহউদ্দীন বলেন, মশার ওষুধ অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নেয়া হয়। ওষুধের মান নিয়ে কোন প্রশ্ন নেই। ওষুধের মজুদও যথেষ্ট আছে। প্রয়োজনে আগামী বছর ওষুধের বাজেট আরো বাড়ানো হবে। 

আরেক এলাকাবাসী অভিযোগ করেন এলাকার কুকুরের উপদ্রবে টেকা দায় হয়ে পড়েছে। বাচ্চারা ভয় পাচ্ছে। রাতে অনেককে কামড় দিয়েছে। জবাবে মেয়র বলেন, হাইকোর্টের নিষেধ থাকায় কুকুর নিধন করা যাচ্ছে না। 

উত্তর যাত্রাবাড়ি এলাকার বাসিন্দারা পানি ও গ্যাস সংকটের কথা তুলে ধরেন। জবাবে ঢাকা ওয়াসার কর্মকতা দ্রুত সমাধানের আশ্বাস দিলেও তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তা গ্যাসের চাপ না বাড়লে তাদের কিছুই করার নেই বলে জানান। এ সময় ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল জানান, গ্যাস সমস্যা একটু জটিল ব্যাপার। তিতাসের এমডির সাথে বৈঠক করে এ সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করা হবে। 

এছাড়াও স্থানীয় বাসিন্দারা যাত্রাবাড়ি পার্ক ফেরত, একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন, কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, কাঁচাবাজার স্থাপন, ফুটপাত ময়লা অবর্জনা মুক্ত করাসহ বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য মেয়রের কাছে দাবি জানান। মেয়র জানান, জুনের প্রথম সপ্তাহে যাত্রাবাড়ি পার্ক আধুনিকায়নে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে। জমি পেলে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাজ শুরু করা হবে। 

স্থানীয় বাসিন্দা আবুল খায়ের বলেন, আমাদের একটা কমিউনিটি সেন্টার প্রয়োজন। আমরা কৃষি অধিদপ্তরের ২১ শতকের একটি জমি চিহ্নিত করে আপনার কাছে আবেদন করেছি। আপনি উদ্যোগ নিলে সমাধান সম্ভব। এসময় মেয়র বিষয়টি নিয়ে কাজ করবেন বলে আশ্বাস দেন।

এলাকাবাসী সিসি টিভি স্থাপনের আবেদন জানালে মেয়র বলেন, ২০১৮ সালে পুরো ডিএসসিসি এলাকাকে সিসি টিভির আওতায় আনা হবে। এলইডি লাইট স্থাপনের এলাকাবাসীর অনুরোধের প্রেক্ষিতে মেয়র আগামী জুনের মধ্যে যাত্রাবাড়ি এলাকার প্রতিটি ওয়ার্ডকে এলইডি লাইটের আওতায় আনার অঙ্গীকার করেন।

এলাকার ফুটপাত দখলমুক্ত করার দাবি জানান এলাকাবাসী। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, আমরা উচ্ছেদ করি। কিন্তু সাথে সাথেই আবার বেদখল হয়ে যায়। এসময় উপস্থিত জনতা উচ্চস্বরে উচ্ছেদ হয় না, উচ্ছেদ হয় না বলে শ্লোগান দিতে থাকেন। মেয়র তখনি আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন প্রতি সোম ও বুধবার অভিযান চালিয়ে ফুটপাত দখল মুক্ত রাখার জন্য। 

একজন এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, স্থানীয় সরকার দলীয় এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার ছেলে এলাকায় দখলবাজি করে বেড়াচ্ছেন। তার দখলবাজির কারণে একটি এলাকার ৩০/৩৫টি পরিবার গৃহবন্দি হয়ে পড়েছে। জবাবে মেয়র আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাকে দ্রুত এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়ে বলেন, জনগনের উপর কোন শক্তি নেই। যে নেতা মানুষকে কষ্ট দেয় তার দরকার নেই। 

স্থানীয় অপর এক বাসিন্দা এলাকার সড়কগুলোর নাম শ্রুতিমধুর নয় উল্লেখ করে সড়কগুলোকে জনপ্রতিনিধিদের নামে নামকরণের প্রস্তাব দেন। পরে মেয়র বলেন, এ সংক্রান্ত আমাদের একটি কমিটি আছে। আপনারা কমিটির কাছে আবেদন করেন।

এলাকার জলাবদ্ধতা নিয়ে স্থানীয়দের এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র সাঈদ খোকন জানান, এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৫৫৮ কোটি টাকার একটি প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। দ্রুতই জলাবদ্ধতা নিরসন হবে। এছাড়া যাত্রাবাড়ি চৌরাস্তা মোডে একটি ফুট ওভার ব্রিজ নির্মাণেরও ঘোষনা দেন তিনি। স্থানীয়দের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আপনাদের এলাকায় একটি কাঁচাবাজার স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তার কাজ শুরু করা হবে।

স্থানীয় ৪৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল কালাম অনুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নাজমা বেগম, ডিএসসিসির প্রধান প্রকৌশলী ফরাজি শাহাবউদ্দিন আহমেদ, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ইউসূফ আলী সরদার প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ