ঢাকা, মঙ্গলবার 11 March 2017, ২৮ চৈত্র ১৪২৩, ১৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হাতিরঝিলে চার কোটি টাকার পরিত্যক্ত পোরশে ভেতরে ‘প্রায়শ্চিত্তের’ চিঠি

 

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় প্রায় চার কোটি টাকা দামের একটি পোরশে গাড়ি ফেলে উধাও হয়েছেন মালিক; ভেতরে পাওয়া গেছে ‘ খোঁজাখুজি না করার’ অনুরোধ জানিয়ে একটি চিঠি। গতকাল সোমবার সকালে ওই এলাকা থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় গাড়িটি উদ্ধার করেন শুল্ক গোয়েন্দারা।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মইনুল খান বলেন, “গাড়ির চাবি ভেতরেই ছিল। ড্রাইভারের সিটে ছিল একটি চিঠি।”শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের ফেইসবুক পৃষ্ঠায় প্রকাশ করা ওই চিঠিতে মালিকের নাম-পরিচয় দেখা যায়নি। গোয়েন্দারাও তা প্রকাশ করেননি। 

শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা গাড়িটি কয়েক বছর ধরে ব্যবহার করার কথা জানিয়ে মালিক ওই চিঠিতে লিখেছেন, “গাড়িটি আমার অনেক প্রিয় ও আবেগের। সম্প্রতি আমি জানতে পারি, এই গাড়িটিতে ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়া হয়েছে।“আমি সমাজের সম্মানিত ব্যক্তি। আমাকে অনেকে এক নামে চেনে। মান সম্মানের কথা ভেবে আমি নিজের ইচ্ছায় গাড়িটি ফেলে রেখে গেলাম।”

তাকে আর ‘ খোঁজার চেষ্টা না করার’ অনুরোধ জানিয়ে শুল্ক গোয়েন্দাদের উদ্দেশে ওই ব্যক্তি লিখেছেন, “ দেশব্যাপী পরিচালিত আপনাদের অভিযানগুলোর আমি প্রশংসা করছি। আমার অতি প্রিয় এই গাড়িতে ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে অন্যায় করলেও এটি জমা দেওয়ার মাধ্যমে আমি সেটির প্রায়শ্চিত্ত করলাম।”

শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পরিচালক শরীফ আল হাসান জানান, কাগজপত্রের তথ্য অনুযায়ী, ফরিদ রশিদ নামে এক প্রবাসী ২০১০ সালে কারনেট সুবিধার আওতায় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে ইংল্যান্ড থেকে ওই পোরশে গাড়ি বাংলাদেশে আনেন।“কারনেট সুবিধায় আনলে তিন মাসের মধ্যে গাড়ি ফেরত নিয়ে যাওয়ার নিয়ম থাকলেও তিনি সেটা না করে হয়তো হস্তান্তর করেছেন।”

২০০৫ সালে তৈরি ৯৫৫ মডেলের ওই পোরশে সায়ানের আনুমানিক দাম চার কোটি টাকা বলে জানান শরীফ। তিনি বলেন, ফরিদ রশিদের বাংলাদেশী ঠিকানার সূত্র ধরে শিগগিরই অনুসন্ধান শুরু করবেন তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ