ঢাকা, মঙ্গলবার 11 March 2017, ২৮ চৈত্র ১৪২৩, ১৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বাবর হাসান নৈপুণ্যে সিরিজে সমতা ফেরালো পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রথমে ব্যাটসম্যান বাবর আজমের সেঞ্চুরি ও পরে পেসার হাসান আলীর ৫ উইকেট শিকারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে সমতা আনলো পাকিস্তান। গত রোববার  সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তান ৭৪ রানে হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-১ সমতা বিরাজ করছে। সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ৪ উইকেটে জিতেছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার।
বল হাতে নিয়ে পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটিকে ১৬ রানের বেশি যোগ করতে দেননি ক্যারিবীয় পেসার শানন গ্যাব্রিয়েল। ৫ রান করে ফিরেন ওপেনার আহমেদ শেহজাদ। ওপেনার কামরান আকমল ২১ রান করে থামেন। ৪৪ রানে দুই ওপেনারকে হারানোর পর দলকে সামনের দিকে এগোনোর পথ দেখান বাবর আজম ও মোহাম্মদ হাফিজ। দলীয় ১১৩ রানে এই জুটি ভেঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তৃতীয় সাফল্য এনে দেন অফ-স্পিনার আসলে নার্স। ৩২ রান করে নার্সের শিকার হন হাফিজ। শোয়েব মালিক মাত্র ৯ রান করে লেগ-স্পিনার দেবেন্দ্র বিশুর শিকার হন। ১৫ রানের ব্যবধানে মিডল-অর্ডারে ভরসা করার মত দুই ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে আবারো চাপ অনুভব করে পাকিস্তান।
এবার পাকিস্তানের উপর থেকে সেই চাপ দূর করার মিশন শুরু করেন বাবর ও অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। মারমুখী মেজাজে পরিস্থিতি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে চেয়েছিলেন তারা। ৫৯ বলে দু’জনের ৫৫ রানের জুটিতে লড়াই করার পুঁজি পাবার আশা দেখতে শুরু করে পাকিস্তান। ২৬ বলে ২৬ রান করে সরফরাজ আউট হলেও, পাকিস্তানের রান সামনের দিকে এগিয়েছে বাবর ও সাত নম্বরে নামা ইমাদ ওয়াসিমের ব্যাটে চড়ে। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ৬৮ বলে ৯৯ রান যোগ করেন তারা। দু’জনের অবিচ্ছিন্ন জুটির কল্যাণে শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ২৮২ রানের বড় সংগ্রহই পায় পাকিস্তান। বাবর ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৫তম ম্যাচে পঞ্চম সেঞ্চুরির দেখা পান। ওয়াসিমের সংগ্রহ ছিলো ৩৫ বলে ৪৩ রান।
টার্গেট তাড়া করে ম্যাচ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে খেলতে নেমে দলীয় ২২ রানেই প্রথম উইকেট হারায় ক্যারিবীয়রা। জীবন পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি ওপেনার এভিন লুইস। দলীয় ২৭ ও ব্যক্তিগত ১৩ রানে পাকিস্তানী পেসার মোহাম্মদ আমিরের শিকার হন তিনি। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পরের চার উইকেট ৭৫ রানের মধ্যে হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে ক্যারিবীয়রা।
 শেষদিকে তিন জুটির ১৩৩ রানের কল্যাণে ৩১ বল হাতে রেখে ২০৮ রানেই গুটিয়ে যায় আগের ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হোল্ডার ৮৭ বলে ৬৮ ও নার্স ৪৩ বলে ৪৪ রান করেন। দু’জনের ইনিংসেই সমান ৬টি চার ও ১টি ছক্কা ছিলো। এছাড়া বিশু ১৬ ও জোসেফ ১৫ রান করেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
পাকিস্তান : ২৮২/৫, ৫০ ওভার ।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ২০৮/১০, ৪৪.৫ ওভার।
ফল : পাকিস্তান ৭৪ রানে জয়ী।
সিরিজ : তিন ম্যাচের সিরিজে ১-১ সমতা।
ম্যাচ সেরা : বাবর আজম (পাকিস্তান)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ