ঢাকা, মঙ্গলবার 11 March 2017, ২৮ চৈত্র ১৪২৩, ১৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক মঙ্গল শোভাযাত্রার সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে -ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক মঙ্গল শোভাযাত্রার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ। এক বিবৃতিতে তিনি বর্ষ বরণের নামে মঙ্গল শোভাযাত্রার আয়োজন গ্রামে-গঞ্জেও ছড়িয়ে দেয়ার অশুভ পরিকল্পনার তীব্র সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, ইনু সাহেবরাও আজ ফতোয়া দিতে দ্বিধা করছে না ‘পহেলা বৈশাখ উৎসব পালন করলে মুসলমানিত্ব যায় না’ এ ধরণের ফতোয়া দিয়ে ইনুরা নিজেদের ঈমান বিকিয়ে দিচ্ছে এবং ইসলাম থেকে খারিজ হয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা, পহেলা বৈশাখের উৎসব মুসলমানদের কোন উৎসব নয়। এটা সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ে উৎসব। হিন্দুদের উৎসব হিন্দুরা পালন করবে করুক। কিন্তু ৯২ ভাগ মুসলমানদেরকে চাপিয়ে দিয়ে সাম্প্রদায়িক উস্কানী কার স্বার্থে? বাঙ্গালী সংস্কৃতির সার্বজনীনতার তত্ত্বের আড়ালে এসব বিধর্মীয় মূর্তির শোভাযাত্রা অনুশীলনের জন্যে এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ তৌহিদী জনতাকে বাধ্য করার উদ্যোগই বা কেন? অমুসলিমদের প্রতীক ও উপমা ব্যবহার করা ইসলামে নিষিদ্ধ। তিনি বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রা একটি সংখ্যালঘু হিন্দু জনগোষ্ঠীর ধর্ম ও সংস্কৃতির অংশ। মূলতঃ দেব-দেবীকে উদ্দেশ্য করে এসব আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে একটি সংখ্যালঘু গোষ্ঠী কল্যাণ কামনা করে থাকে। তারা বিভিণœ প্রতীকের মাধ্যমে পূঁজা প্রার্থণা করেন। ইসলামে এটা হারাম। হারাম উৎসব মুসলমানদের উপর চাপিয়ে দেয়ার প্রবণতা থেকে ফিরে না আসলে সরকারতে চরম মূল্য দিতে হবে।
গতকাল সোমবার বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর এক মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব- অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ঢাকা দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহ-সংগঠনিক সম্পাদক কেএম আতিকুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, সহ-প্রচার সম্পাদক মাওলানা নেছার উদ্দিন, ঢাকা উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, আলহাজ্ব হারুন অর রশিদ, মাওলানা মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাকী প্রমুখ।
সভায় ২১ এপ্রিল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গ্রিক মূর্তি অপসারণ ও মঙ্গল শোভাযাত্রার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবীতে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় মহাসমাবেশ সফলের আহ্বান জানানো হয়।
নেতৃবৃন্দ বলেন, ভারতের সাথে অমীমাংসিত সমস্যার সমাধান না করে একের পর এক চুক্তি স্বাক্ষর, সামরিক ও সমঝোতা চুক্তি করে বাংলাদেশকে ভারতের করদরাজ্যে পরিণত করার চেষ্টা চলছে। এধরণের দেশবিরোধী কোন চুক্তি দেশের ঈমানদার দেশপ্রেসিক জনতা মানবে না। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ