ঢাকা, মঙ্গলবার 11 March 2017, ২৮ চৈত্র ১৪২৩, ১৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনা বাড়ছে

রাজাপুর (ঝালকাঠি) সংবাদদাতা: রাজাপুরে এবার  উত্তর পালট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন সোহাগকে মারধর, টাকা ও সোনা ছিনিয়ে নেয়ার প্রতিবাদে গত শনিবার দুপুরে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে ওই স্কুলের সাবেক সভাপতি আঃ বারেক হাওলাদারের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষক। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নৈকাঠি গ্রামের বাসিন্দা গিয়াস উদ্দিন সোহাগ অভিযোগ করেন, গত ২ এপ্রিল দুপুরে বিদ্যালয়ের প্রথম শিফটের পাঠদান শেষে তিনি বিদ্যালয়ের পাশে আবদুল জব্বারের চায়ের দোকানে নাস্তা করে স্কুলে ফেরার পথিমধ্যে সাবেক সভাপতি আঃ বারেক হাওলাদারের সাথে ম্যানেজিং কমিটির বিরোধ ও দাবিকৃত ২০ হাজার টাকা দিতে অস্বীকৃতির জের ধরে  পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আঃ বারেক হাওলাদার ও তার দলবল মিলে শিক্ষক সোহাগকে জুতাপেটা ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে, সাথে থাকা ১৮ হাজার ৭ শত টাকা ও ১ ভরি সোনার চেইন ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনার পর ৪ এপ্রিল আঃ বারেক হাওলাদারকে প্রধান করে অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনকে আসামী করে রাজাপুর থানায় মামলা (নং-২) করলে ৪ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ আসামী গ্রেফতার না করায় আসামীরা হত্যাসহ বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিসাধনের হুমকি দিচ্ছে।
এর আগেও ২৬ মার্চ দুপুরে স্কুলের মাঠ ২৬ মার্চের অনুষ্ঠান করার অনুমতি দেয়ার জেরে সাতুরিয়া এমএম পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফজলুল হক আকনকে মারধর করেন সাতুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবির। এছাড়া ৭ এপ্রিল আঙ্গারিয়া গ্রামের নব প্রতিষ্ঠিত বেগম ফজিলাতুননেছা মুজিব প্রতিবন্ধী স্কুলের সহকারী শিক্ষক আল আমিনকেও স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের এক নেতা মারধর করেছে বলে ওই শিক্ষক রাজাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ