ঢাকা, রোববার 16 April 2017, ৩ বৈশাখ ১৪২৩, ১৮ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মুখোমুখি ম্যাচে মাঠে নামা হলো না সাকিব-মোস্তাফিজের

স্পোর্টস রিপোর্টার : আইপিএলের প্রথম মুখোমুখি ম্যাচে মাঠে নামা হলো না বাংলাদেশের দুই ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান আর মোস্তাফিজের। কারণ মুখোমুখি ম্যাচে মাঠের বাইরে রাখা হয়েছে তাদের।  গতকাল দশম আসরের ১৪তম ম্যাচে একাদশে রাখা হয়নি এ দুই তারাকা ক্রিকেটারকে। কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে মুখোমুখি হয়েছে তাদের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। এ ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় হায়দরাবাদ অধিনায়ক  ডেভিড ওয়ারর্নার। এ সুবাদে প্রথমে ব্যাটিং করতে করে স্বাগতিক কলকাতা করে ৬ উইকেটে ১৭২ রান। কিন্তু সাকিব-মোস্তাফিজ  দলে না থাকায় বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে আকর্ষণ হারাল ম্যাচটি। দুই দলই তিন ম্যাচ  শেষে দুটি জয় ও একটি করে হারের স্বাদ পেয়েছে। এই আমসের প্রথম তিন ম্যাচেই ছিলেন না সাকিব। শ্রীলংকা সফর শেষেই ভারতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু গুজরাট লায়ন্স, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে একাদশে তাকে রাখেনি কলকাতা। ধারণা করা হচ্ছিল মোস্তাফিজের হায়দরাবাদের বিপক্ষে সাকিবকে দেখা যাবে। তবে টস হওয়ার সময় একাদশ ঘোষণায় জানা গেল কেবল সাকিব নয়, নেই মোস্তাফিজও। হায়দরাবাদের বাঁহাতি এ পেসার মুম্বাইয়ের বিপক্ষে আগের ম্যাচে খেলেছিলেন। ২.৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে কোনও উইকেট নিতে পারেননি মোস্তাফিজ। স্বাভাবিকভাবে ফর্মে না থাকায় তাকে বাদ পড়তে হলো। তার জায়গায় এসেছেন মোয়াসেস হেনরিক্স। গত ৬ এপ্রিল শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ  খেলে পরদিনই ভারতে পাড়ি দেন সাকিব। সেখানে পৌঁছেই দলের সঙ্গে যোগ দেন অনুশীলনে। কিন্তু ৯ এপ্রিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে কেকেআরের দ্বিতীয় ম্যাচে একাদশে না থাকার সুবাদে ডাগআউটে বসেই খেলা দেখতে হয় থাকে। বৃহস্পতিবার দলটির তৃতীয় ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষেও মাঠে নামা হয়নি বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডারের। অন্যদিকে, শ্রীলংকা থেকে  দেশে ফিরে ভিসা জটিলতায় আটকে যায়  মোস্তাফিজের আইপিএল সফর। মূলত সফর শেষে  দেশে ফেরার পর সরকারি ছুটির কারণেই ভিসা পেতে দেরি হয় তার। তবে, ভিসা পাওয়ার পর ভারত পৌঁছেই পরদিন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে মাঠে নামেন কাটার মাস্টার খ্যাতি পাওয়া এই তরুণ পেসার। যদিও সেই ম্যাচে খুব বেশি সুবিধা করতে পারেননি তিনি। ৩৪ রান দিয়ে থেকেছেন উইকেটশূন্য। আইপিএলে এর আগে দুইবার শিরোপা জিতেছে কলকাতা। যে দুবারই ব্যাটে-বলে অবদান রেখেছিলেন সাকিব। এমনকি গত মৌসুমে ভালো করায় এবারও তাকে দলে রাখে কেকেআর। অন্যদিকে, গতবারই প্রথম আইপিএলে অংশ নিয়ে বাজিমাত করেন  মোস্তাফিজ। তার বোলিং নৈপুণ্যেই প্রথমবারের মতো হায়দরাবাদ শিরোপা জেতে। তাই এবারও তাকে দলে  রেখে দিয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ