ঢাকা, রোববার 16 April 2017, ৩ বৈশাখ ১৪২৩, ১৮ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইসলামবিরোধী চতুর্মুখী ষড়যন্ত্র মোকবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে -মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ

গত শুক্রবার কামরাঙ্গিরচরস্থ মারকাজুল খেলাফত জামিয়া নুরিয়া ইসলামিয়ায় অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্য রাখেন খেলাফত আন্দোলন প্রধান মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর বলেছেন দেশী-বিদেশী চিহ্নিত ইসলামবিরোধী গোষ্ঠীগুলো ইসলামকে মিটিয়ে দিতে ষড়যন্ত্রের সকল ঝাঁপি খুলে দিয়েছে। তারা একদিকে ইসলামী সংগঠনগুলোকে খ--বিখ- করার মাধ্যমে দুর্বল করার ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে অপরদিকে ইসলামের পক্ষের শক্তিগুলোকে সমাজের মূল ¯্রােতধারা থেকে বিচ্ছিন্ন করার ঘৃণিত অপপ্রয়াসে লিপ্ত রয়েছে। হাফেজ্জী হুজুর এবং তার সংগঠনের দিকেও তারা শকুনের দৃষ্টি নিক্ষেপ করেছে। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক গ্রীক মূর্তি অপসারণের প্রতিশ্রুতি প্রদান এবং উলামায়ে কেরামকে সম্মান প্রদর্শন করায় রাম-বামপন্থী নাস্তিক্যবাদি মহলের মাথা খারাপ হয়ে পাগলের প্রলাপ বকা শুরু করেছে। এদেশের জনগণের সুখ-দু:খের সাথী, পরম আস্থাভাজন উলামায়ে কেরামকে নিয়ে নাস্তিক্যবাদীরা অপমানজনক কথাবার্তা বলার দু:সাহস দেখাচ্ছে। সব ধরনের ষড়যন্ত্রের মোকাবিলায় খেলাফত আন্দোলনের প্রতিটি কর্মী ও জনগণকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াতে হবে। তাগুতি শক্তিকে পরাভূত করে ইসলামী রাষ্ট্র কায়েম করতে হবে।
গত শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে রাজধানী ঢাকার কামরাঙ্গীরচরস্থ মারকাজুল খেলাফত জামিয়া নূরিয়া ইসলামিয়ায় অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলন ২০১৭-এ সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মাওলানা সুলতান মহিউদ্দীনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন খেলাফত আন্দোলনের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী। বক্তব্য রাখেন- নায়েবে আমীর মাওলানা হাজী ফারুক আহমাদ, মাওলানা ইসমাঈল বরিশালী, মাওলানা মুজীবুর রহমান হামিদী, আব্দুল মালেক চৌধুরি, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা শেখ আজীমুদ্দীন, মাওলানা সাজেদুর রহমান ফয়েজী সাতক্ষীরা, মাওলানা সানাউল্লাহ, মাওলানা হেদায়াতুল্লাহ বাশার পিরোজপুর, রোকনুজ্জামান রোকন চাঁদপুর, হাজী জালালুদ্দিন বকুল, হাফেজ মাওলানা আবু তাহের, মাওলানা জিয়াউল হক শহিদী, মুফতি ফখরুল ইসলাম, মাওলানা গালিব হাসান, মাওলানা মাহবুবুর রহমান, মাওলানা আনোয়ারুল্লাহ ভূইয়া ফেনী, মাওলানা আব্দুল হাই নোয়াখালী, এডভোকেট মো: লিটন চৌধুরি গোপালগঞ্জ, মাওলানা ফিরোজ আশরাফী, এডভোকেট আব্দুল আজিজ মোমেনশাহী, মৌলভী আব্দুর রকিব নেত্রকোণা, মাওলানা আকরাম হোসাইন শরিয়তপুর, মাওলানা আব্দুল মান্নান রাঙ্গামাটি, মাওলানা ইউসূফ সাদেক হক্কানী ফরিদপুর, মুফতি ইলয়াছ মাদারিপুরী, সালাহুদ্দিন জয়নাল বি বাড়িয়া, হাজী হাফিজুর রহমান সর্দার গাইবান্ধা, মাওলানা আবু বকর রাজশাহী, মিজানুর রহমান খোকন মুন্সীগঞ্জ, রবিউল ইসলাম মেহেরপুর, রশিদুল হক বিএসসি চট্টগ্রাম, মাওলানা ইসহাক নাগরী কুমিল্লা, মুফতি মামুনুর রশিদ বরিশাল, মাওলানা আব্দুর রহিম শাকের, মৌলভী আব্দুস সালাম সিরাজগঞ্জ, মুফতি আ ফ ম আকরাম হুসাইন শরীয়তপুর, ডাক্তার নেয়ামত আলী ফকির জামালপুর, মাওলানা ইব্রাহিম শেরপুর, মাওলানা ইসমাঈল যশোরী, মাওলানা ফজলুল করিম মাগুরা, মাওলানা আখতার হোসাইন রংপুর, খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হাফেজ আল-আমিন, একে এম বিন কাসেম চৌধুরি সহ ৫৭ জন জেলা প্রতিনিধি।
স্বাগত বক্তব্যে মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী আগত প্রতিনিধিবৃন্দকে কেন্দ্রের আহবানে দূর-দূরান্ত থেকে কষ্ট স্বীকার করে প্রতিনিধি সম্মেলনে উপস্থিত হওয়ার জন্য আন্তরিক মোবারকবাদ জানান। তিনি খেলাফত আন্দোলনের প্রত্যেক জেলা কমিটি পুনর্গঠন, আগামী রমযান উপলক্ষে সকল জেলা ও থানাসমূহে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল সহ জনসম্পৃক্ততামূলক কার্যক্রম হাতে নেয়ার আহবান জানান।
মুজিবুর রহমান হামিদী বলেন, প্রত্যেকের দায়িত্ব একটি আমানত। যোগ্যতা, সততা ও কর্তব্যপরায়ণ মানসিকতা নিয়ে খেলাফত প্রতিষ্ঠার এই আমানত রক্ষা করতে হবে। আন্তরিকতার সাথে আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশে কাজ করে যেতে হবে। আদর্শ নাগরিক তৈরির মাধ্যমে দেশ ও জাতির উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে অপশক্তির মোকাবিলা করতে হবে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, হাফেজ্জী হুজুরকে স্বাধীনতা বিরোধী প্রমাণের অপচেষ্টা ও আল্লামা আহমদ শফীকে তেতুল হুজুর বলে অপমান করার দ্বারা জাতীর সামনে ইসলামের শত্রুদের মুখোষ উন্মোচন হয়েছে। এরাই এদেশ থেকে ইসলামকে উৎখাত করার নীলনকশা আঁকছে। সব শ্রেণি-পেশার মুসলমান সজাগ ও সচেতন হয়ে ইসলমা বিরোধী রুখে দাঁড়াতে হবে। সরকারের উচিত ষড়যন্ত্রকারীদের লাগাম টেনে ধরা, অন্যথায় তাওহীদি জনতার আন্দোলন শামাল দেয়া যাবে না। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ