ঢাকা, রোববার 16 April 2017, ৩ বৈশাখ ১৪২৩, ১৮ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

হঠাৎ করে কওমি সনদকে সরকারি স্বীকৃতির ঘোষণা সুগভীর ষড়যন্ত্রমূলক আঁতাত

চট্টগ্রাম অফিস : কওমি সনদকে সরকারি স্বীকৃতির প্রতিবাদে গতকাল শনিবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে লিখিত বক্তব্যে আহলে সুন্নাত সদস্য সচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দীন বখতেয়ার বলেন, সরকার দেড়শো বছর ধরে চলমান ওহাবী-দেউবন্দী মতাদর্শী বেসরকারি কউমী মাদ্রাসাকে সরকারি সনদ প্রদানের ঘোষণা দিয়ে আজ সমগ্র জাতিকে স্তম্ভিত করে দিয়েছে। যারা কখনো সরকারের আনুগত্য করেনি, সরকারি নিয়ম-কানুন মেনে চলেনি, যাদের শিক্ষা কারিকুলাম সরকার কর্তৃক অনুমোদিত নয়, অধিকন্তু এতোদিন যে মাদ্রাসাসমূহের বিরুদ্ধে জঙ্গি প্রজননের অভিযোগ ছিল, যাদের ২০১৩ সনে মতিঝিল শাপলা চত্বর ধ্বংসযজ্ঞ থেকে নির্মমভাবে পিটিয়ে তাড়াতে হয়েছিল সরকারকে। এমন উগ্রগোষ্ঠীর মাদ্রাসাগুলোকে পুরস্কৃত করার ঘোষণাটি রীতিমত হতাশাজনক এবং সুগভীর ষড়যন্ত্রমূলক আঁতাত হিসেবেই ধরে নেওয়া যায়।
তিনি বলেন, সরকারের মাদ্রাসা শিক্ষানীতি বড়ই রহস্যময়। তারা সরকারিভাবে পরিচালিত আলিয়া মাদ্রাসামূহকে সাধারণ শিক্ষার পর্যায়ে নিয়ে আসছে এমনভাবে- যাতে ভবিষ্যতে এ ঐতিহ্যবাহী আলিয়া কারিকুলামের মাদ্রাসা থেকে কোন যোগ্য আলেম, মুফতি, মুহাদ্দিস, মুফাসসির আর উঠে না আসে। আর পক্ষান্তরে এতো দিনের বেসরকারি মাদ্রাসাকে কোন ধরনের সংস্কার না করে সরকারি সনদ দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে মূলত মাদ্রাসামুখী ছাত্রদের আলিয়া ছেড়ে উগ্রপন্থী কউমী নেসাবে উৎসাহী করবে। ফলক্রমে আলিয়া মাদ্রাসা ধ্বংস হবে এবং কউমিদের শক্তি বৃদ্ধি পাবে। যা সুন্নিয়তের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকারের এক গভীর চক্রান্ত।
তিনি কউমী মাদ্রাসাকে সরকারি সনদ দেওয়ার ঘোষণা অবিলম্বে প্রত্যাহার করে দেশে একমুখী মাদ্রাসা শিক্ষানীতি বাস্তবায়নের দাবি জানান। কউমী-আলিয়া নির্বিশেষে সকল মাদ্রাসায় একই কিতাবপত্র পড়ানো হলে এবং সকলে একই প্রশ্ন ও পরীক্ষায় অংশ নেবার পর একই সরকারি সনদ পেতে পারে অন্যথায় নয়- এটাই যৌক্তিক এবং ন্যায্য দাবি।
আহলে সুন্নাত নেতৃবৃন্দ এ দাবি আদায়, আলিয়া মাদ্রাসা শিক্ষা সংকোচন নীতি প্রত্যাহারসহ কউমী সনদ প্রত্যাহারের দাবিতে আগামী ১৭ ও ১৮ এপ্রিল সোম ও মঙ্গলবার জেলা-উপজেলায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি এবং ২০ এপ্রিল বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করার ঘোষণা দেন।
এসময় সাংবাদিক সম্মেলন সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন আহলে সুন্নাতের প্রধান সমন্বয়ক মাওলানা এম এ মতিন। সম্মেলনে আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা'আত এর জাতীয় নেতৃবৃন্দ ও পীর-মাশায়েখদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট চেয়ারম্যান   আল্লামা এম এ মান্নান, আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ মছিহুদ্দৌলা, মাওলানা স উ ম আবদুস সামাদ, অধ্যক্ষ আবুল ফারাহ মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দীন, অধ্যক্ষ মাওলানা ইছমাইল নোমানী, কাজী সোলাইমান চৌধুরী, এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, মাওলানা শফিউল আলম আজিজি, অধ্যাপক আনোয়ার হোসাইন, মাওলানা রেজাউল করিম তালুকদার, ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ নুর হোসাইন,   নঈম উল ইসলাম, মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ