ঢাকা, রোববার 16 April 2017, ৩ বৈশাখ ১৪২৩, ১৮ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

তিতাসে বাংলা বর্ষবরণ উপলক্ষে ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণ

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) সংবাদদাতা : ১৪২৪ শুভবাংলা নববর্ষ উপলক্ষে গতকাল শনিবার তিতাস উপজেলার দড়িকান্দি (আসমানিয়া) আপনজন সংগঠনের উদ্যোগে স্থানীয় তিনটি স্কুলের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। প্রতিযোগীতায় দড়িকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গ্রামীন প্রি-ক্যাডেট ও রাইন আইডিয়াল একাডেমি অংশগ্রহণ করে। মো. সাইজুদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন ভিটিকান্দি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বাখরাবাদ গ্যাস ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির সভাপতি মো. মজিবুর রহমান, বিশেষ আকর্ষণ ছিলেন তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান নূরুন নাহার পারভীন (মজিব), এছাড়া রফিকুল ইসলাম, মোশারফ হোসেন ময়নাল, সংগঠনের সভাপতি মো. রুবেল, সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির, সালাউদ্দিন ভূইয়া ও জহিরুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজয়ী এবং অনুষ্ঠানে মাহি মাহমুদসহ ট্যালেন্টপুল-সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত প্রায় ৫০ জন শিক্ষার্থীকে উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।
কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে গেছে
পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তিতাস উপজেলার উত্তর মানিকনগর গ্রামে প্রতিপক্ষের লাগানো আগুনে নগদ টাকা, স্বর্ণ-গহনা, ছাগল হাঁস-মুরগিসহ কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সরেজমিনে ঐ গ্রামে গেলে ক্ষতিগ্রস্থ আব্দুল মজিদ ও তার ছেলে প্রবাস প্রত্যাগত মনির হোসেন জানান, প্রবাসী ছাদেক হোসেনের লোকজন রাতে বসতসহ অন্যান্য ঘরে পেট্রোল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দিলে নগদ পঁচিশ লাখ টাকা, ৪৫ভড়ি স্বর্ণ গহনা, ব্যাংক বীমার কাগজ পত্র, পাসপোর্ট, দলিলপত্র ও মূল্যবান মালামাল পুড়ে যায়। আগুনে ছাগল ও হাস মোরগ মারা যায়। অগ্নিকা-ের খবর পেয়ে তিতাস থানা পুলিশ ও হোমনা থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে রাত সাড়ে তিনটার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। জায়গা সম্পত্তির বিরোধ নিয়ে ইতিপূর্বে ছাদেক তাদের বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ করেন মজিদ ও তার পরিবারের লোকজন। প্রবাস প্রত্যাগত আব্দুল মজিদের ছেলে মনির হোসেন জানান, সম্প্রতি সেলিম নামে এক ব্যাক্তি তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে। আগুনে বসতঘর যখন পুরছিল তখন মনির তার স্ত্রী রেহেনা দুই ছেলে সাজিদ ও বায়জিদ এবং মেয়ে নুসরাতকে নিয়ে কোন রকমে আহত অবস্থায় ঘর থেকে বেড়িয়ে এসে প্রাণে রক্ষা পান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ