ঢাকা, মঙ্গলবার 18 April 2017, ৫ বৈশাখ ১৪২৩, ২০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

শিশু পুত্রের চিকিৎসায় মায়ের আকুতি

শ্রীপুর (মাগুরা) সংবাদদাতা : শিশু পুত্রের চিকিৎসার জন্য মায়ের আকুতি। ভাড়া করা জীর্ণঘরে নেই খাবার, নেই বসবাসের মত আসবাবপত্র না আছে শিশু পুত্রে চিকিৎসা জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ। কি দিয়ে পুত্রের চিকিৎসা করাবে তা নিয়ে মায়ের ভাবনা। কোথাও কোন ব্যবস্থা করতে না পেরে মানুষের কাছে সাহার্য্যরে জন্য হাত বাড়াতে বাধ্য আজ। মাগুরা শহরের ঘরবাড়ি হারা রিক্সাচালকের স্ত্রী ফারভীন আক্তার এর ৪ বছরের ছেলে পারভেজ কঠিন মিয়নগো এনক্যাপালাইটিস রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দরিদ্র মা তার সামনে ছেলের মৃত্যু হবে এ চিন্তায় দিশেহারা। একেত গরীর, নেই ঘরবাড়ি। পরের জায়গায় থাকে তার উপর পারভেজ ছাড়াও একটি কন্যা নিয়ে সংসার চালাতে হীমসীম খাচ্ছে। তার উপরে ছেলের এ অবস্তা নিয়ে কি করবে ভেবে পাচ্ছেনা। গত রোজার সময় হঠাৎ পারভেজের শরীরে এ রোগ দেখা দেয়। তাকে ফরিদপুর মেডিকেলে নিয়ে গেলে নবজাতক ও শিশু বিশেষজ্ঞ অলোক কুমার সাহা ঢাকা ইসলামীয়া হাসপাতালে নিতে বলে। আর্থিক অনটনে মাগুরা রাবেয়া চক্ষু হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: মিজানুর রহমানকে দেখালে তিনিও ঢাকার ইসলামী চক্ষু হাসপাতালে পাঠানোর জন্য বলেন। বর্তমানে পারভেজ কথা বলেনা, কাউকে চিনছেনা, নিজে খায়না, মুখ দিয়ে লালা পড়তে থাকে। এ অবস্থায় পারভেজের ঢাকায় নিয়ে চিকিৎসা করা খুবই প্রয়োজন। অথচ দরিদ্র রিক্সা চালক পিতার উপার্জনে সংসার চালানোই দায় তার উপর চিকিৎসা করানো সম্ভব নয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার চিকিৎসার জন্য ৪ লাখ টাকা প্রয়োজন। অসহায় মাতার পক্ষে এক হাজার টাকা খরচ করাই কঠিন। সেখানে সে ৪ লাখ টাকা কিভাবে খরচ করবে এ চিন্তায় সে নিজেই রোগী হয়ে পড়ছে। ছেলের চিকিৎসার জন্য কোন ভাবেই তার পক্ষে টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব না হওয়ায় সমাজের ধনবান ও দয়াবান ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে সাহায্যের জন্য আহবান জানিয়েছেন। সামান্য সহযোগিতার হাত প্রসারিত করলে আমার শিশু সন্তানটি বাঁচবে। আর দশজনের মত হেসে খেলে বেড়াবার সুযোগ পাবে। সাহায্য পাঠাবার ঠিকানা। পারভীন আক্তার হিসাব নং- ২৫৪৫৩ ইসলামী ব্যাংক, মাগুরা শাখা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ