ঢাকা, মঙ্গলবার 18 March 2017, ৫ বৈশাখ ১৪২৩, ২০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মার্চ মাসে রাজনৈতিক সন্ত্রাস

মুহাম্মদ ওয়াছিয়ার রহমান : রাজনৈতিক উত্তাপহীন মার্চ মাস ছিল নীরব। এ মাসে কয়েকটি উপজেলা ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন ছিল উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক ঘটনা। মার্চে ১৩০টি রাজনৈতিক সন্ত্রাসের তথ্যে নিহতের সংখ্যা ৬। এই ৬ জনের ৪ জনই আওয়ামী লীগের হাতে এবং যুবলীগের হাতে ২ জন খুন হয়। এ মাসে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতায় প্রাপ্ত তথ্যে আহত হয় ৩৬২ জন এবং এ মাসে গ্রেফতার বেশী হলেও ২৬২ জন গ্রেফতারের তথ্য পাওয়া গেছে বাকীদের পরিচয় প্রকাশিত হয়নি, গ্রেফতারকৃতরা অধিকাংশই বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী এবং দন্ডপ্রাপ্ত ২২ জন, এই ২২ জনের আওয়ামী লীগের ৬, ছাত্রলীগের ১২, যুবলীগ-১, প্রজন্ম লীগ-২ এবং জেএমবির ১ জন। প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে মার্চ মাসে নিহত- (১) নোয়াখালী সদরে আন্ডারচর ইউনিয়নে দলীয় কোন্দলে আওয়াী লীগ নেতা আবুল হাশেমকে খুন করেছে প্রতিপক্ষ, (২) টাঙ্গাইলে দুই যুবলীগ নেতা শামীম এবং (৩) মামুন হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা ও এমপি আমানুর রহমান খান রানা পরিবারের সংশ্লিষ্টতা উদঘাটন এবং (৪) ঢাকার আশুলিয়ায় বালূমহল ও ঝুট ব্যবসা নিয়ে আওয়ামী লীগের বন্দুক যুদ্ধে আব্দুর রহীম নামে একজন নিহত, (৫) বগুড়ার শিবগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক নিহত ও (৬) নওগাঁর রাণীনগরে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে স্ত্রী নিলুফার বেগমকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া যায়।
আওয়ামী লীগ : ১ মার্চ পাবনার সুজানগরে উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির নির্বাচনী প্রচারণায় মেজর এস.কে মার্কেটে আওয়ামী লীগের হামলা। হামলায় জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক নূর মোহাম্মদ মাসুম বগা, আনিসুল হক বাবু, শহীদুল ইসলাম বিশ্বাস টুটুল ও জেলা যুবদল সহ-সভাপতি টিপুসহ অনেকে আহত হয়। এ সময় তারা সুজানগর পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামাল বিশ্বাসের বাড়ীও ভাংচুর করে। বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছাত্রদল হোগলাপাড়া ইউনিয়ন যুগ্ম-সম্পাদক সিফাত উল্লাহ্কে মারধর করে আওয়ামী লীগ। ৩ মার্চ ফরিদপুরের শালথায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশত। সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধূরীর ছেলে আয়মন আকবর চৌধূরী বাবলুর সমর্থক এবং গট্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ মাতুব্বরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৫৫টি বাড়ী ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। সংঘর্ষে আহতরা হলো- আলম মৃধা, দাউদ মৃধা, কোবাত খালাশী, সুরুজ খালাশী, সুমন মাতুব্বর, মিরাজ সিকদার, সুজাত বেপারী, রুহুল মুন্সী, কালাম মৃধা, সুজাত খালাশী ও বাসের মোল্লাসহ পঞ্চাশ জন। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মিরুখালী বাজারের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ কর্মী মাসুম, মহিবুল্লাহ্্, শাহীন ও মিজান আহত হয়। এ বিষয়ে দু’টি মামলায় রাকিব ভূঁইয়া, জসিম সরদার ও মাহবুবসহ পাঁচ জনকে আটক করে পুলিশ। পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে নৌডুবি এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা কালে এক পথসভায় বিএনপির উপর হামলা করে আওয়ামী লীগ। নৌডুবি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল করীমের নেতৃত্বে হামলায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি কবির হোসেন তালুকদার, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি জাকির হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি হাসনায়েন রাব্বি, সাধারন সম্পাদক মাহমুদ হাওলাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক মুনিম, বাবু, সম্রাট, পলাশ, লিটন দাস, হেলাল, সুমন, মলিন, টিপু, আরেস মুন্সী, আরিফ মুন্সী ও সজিব হাওলাদারসহ আহত হয় অর্ধশত।
৪ মার্চ পাবনার সুজানগরে উপজেলা নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা এবং বিএনপি নেতা ও সাবেক এমপি এ.কে.এম সেলিম রেজা হাবিবের উপর হামলা করে আওয়ামী লীগ। নোয়াখালী সদরে আন্ডারচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কোন্দলে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাশেমকে খুন করে দলীয় প্রতিপক্ষ গ্রুপ। ৬ মার্চ যশোরের কেশবপুরে ত্রিমোহনী ইউপি চেয়ারম্যন ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আনিসুর রহমান এবং তার সহযোগী মিলন সরদারকে ১০০ পিস ইয়াবাসহ আটক করে ডিবি পুলিশ। একই দিন তিনি সাতবাড়িয়া ভূমি অফিসে অবৈধ ভাবে জমির নাম জারী না করায় ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা বিষ্ণুপদ মল্লিককে মারধর করে। ৮ মার্চ ঢাকায় হাই কোর্টের একটি বেঞ্চ দুর্নীতির মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ এইচ.বি.এম ইকবালের স্ত্রী ডাঃ মমতাজ ইকবাল ডলি, মেয়ে নাওরিন ইকবাল ও ছেলে মাহিন ইকবালকে কারাগারে পাঠায়। উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ১১ মার্চ ঢাকার একটি বিশেষ আদালত তাদের তিন বছরের কারাদন্ড দেয়। মানিকগঞ্জের সিংগাইরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চার ছাত্র পান্থ, সুমন, রাহাত ও আহমেদকে মারপিট করে উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বলধারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মাজেদ খান। ১০ মার্চ বরগুনার বামনা উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম মৃধা লিটুর ভগ্নিপতি জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সম্পাদক ও বরগুনা পৌর প্যানেল মেয়র রইসুল ইসলাম রিপনের বিরুদ্ধে প্রাণ নাশের হুমকিতে বামনা থানায় জিডি এন্ট্রি করে উপজেলা পরিষদ ভাইস-চেয়ারম্যান গোলাম সাব্বির তালুকদার ফেরদৌস।
১১ মার্চ নরসিংদীর পাঁচদোনায় ঢাকায় জাপার মহাসমাবেশে আসার সময় আওয়ামী লীগের হামলায় বার নেতা-কর্মী আহত ও ৫টি বাস ভাংচুর করা হয়। খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল গাড়ী বহর নিয়ে টুঙ্গীপাড়ায় শেখ মুজিবের মাজারে যাওয়ার পথে ছাচিয়াদহ এলাকায় পৌঁছালে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম মোস্তফা রশিদী সুজার সমর্থকরা হামলা চালিয়ে ১০টি গাড়ী ভাংচুর করে। তাদের হামলায় জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, তার ভাই উবায়দুল ইসলাম, পলাশ ও আমিরসহ আহত পাঁচজন। এ সময় তারা ২০-২৫ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করে। ঢাকার সাভারে বিরুলিয়া ইউনিয়নের সামাইর গ্রামে আওয়ামী লীগ নেতা ও বিরুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সুজন এবং যুবলীগ নেতা সেলিম মন্ডলের মধ্যে পূর্ব দ্বন্দ্বের জেরে সেলিমের সমর্থক শাহাবুদ্দিন শাহকে কুপিয়ে জখম করে সুজন গ্রুপ। সেলিমের বাবা শানু মিয়া ও মা উজুবা বেগম ঠেকাতে গেলে তারাও আহত হয়। ১২ মার্চ সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক আক্তারুজ্জামান চৌধূলী জগলুকে সাংগঠনিক শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বহিস্কার করে আওয়ামী লীগ। সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মুক্তাদির আহমেদকে সাংগঠনিক শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে বহিস্কার করা হয়। কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ সোহেলকে সাংগঠনিক শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হয়।
১৩ মার্চ ফেনী সদরে ফরহাদ নগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান ফোরকান চৌধূরী এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন পিটুর সাথে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ দিন কে.এম হাট আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনে ফরম সংগ্রহ নিয়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ইউনিয়ন যুবলীগ সহ-সভাপতি সানাউল্লাহ্্, অপর সহ-সভাপতি সবুজ, ছাত্রলীগ ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন সজিব, যুবলীগ কর্মী সাইদুল হক শামীম ও নূরুল আবসারসহ দশজন আহত হয়। ফরিদপুরের বোয়ালমারী ষ্টেডিয়ামে ওয়াজ মাহফিলে আওয়ামী লীগের দু’নেতা স্থানীয় এমপি আব্দুর রহমান ও বোয়ালমারী উপজেলা চেয়ারম্যানকে অতিথি না করায় মাহফিলটি বন্ধ করে দেয় আওয়ামী লীগ। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে শিবপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচন নিয়ে মতবিরোধে প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ্র দাসের কক্ষ ভাংচুর ও তাকে বেধড়ক মারপিট করে মামুন, পলাশ ও আমজাদের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন আওয়ামী লীগ কর্মী। ঢাকা মহানগরীর কদমতলা পূর্ব বাসাবো স্কুল এন্ড কলেজের দশম শ্রেনীর ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মাসুদ পারভেজ আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে তার জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। সাজেশন দেয়ার কথা বলে ঐ ছাত্রীকে তার নিজ অফিসে নিয়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করলে মেয়েটি চিৎকার দিয়ে দৌঁড়ে পালায়। প্রাথমিক তদন্তে অপরাধ প্রমাণিত হয় এবং পূর্বেও তার বিরুদ্ধে একই ধরনের অভিযোগ পাওয়া যায়।
১৪ মার্চ মেহেরপুরের গাংনীতে এল.জি.ই.ডি-র উপজেলা প্রকৌশলী মাহাবুবুল হককে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করায় গাংনী পৌর আওয়ামী লীগের ৭নং ওয়ার্ড সভাপতি জহুরুল ইসলাম, ৯নং ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন ও উপজেলা যুবলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল ইসলামকে আটক করে পুলিশ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালেকের ব্যবসায়িক পার্টনার মোনায়েক মোলাক নবীনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজে ত্রুটি করে। ভবনের সিঁড়ি ঢালাই দেয়ার পরে তা ভেঙ্গে পড়ে, ঘটনা তদন্ত করলে আব্দুল খালেক লোক দিয়ে এই ঘটনা ঘটনায়। ১৫ মার্চ পিরোজপুরের নেছারাবাদে একই স্থানে ১৮ মার্চ শেখ মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সমাবেশ ডাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। দু’গ্রুপের নেতৃত্ব দেয় আওয়াী লীগের জেলা সভাপতি এ.কে.এম.এ আউয়াল এমপি এবং সহ-সভাপতি ও সাবেক এমপি অধ্যক্ষ মোঃ শাহ আলম। ১৬ মার্চ সিরাজগঞ্জ সদরের হাট সারটিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত দশজন। সংঘর্ষে আহতরা হলো- সয়দাবাদ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারন সম্পাদক রুবেল, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সবুজ, সাংগঠনিক সম্পাদক সেতু, যুগ্ম-সম্পাদক মুক্তার, ছাত্রলীগ নেতা মিঠু ও শরীফসহ দশজন। ১৭ মার্চ টাঙ্গাইলে দুই যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন হত্যা মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা ও এমপি আমানুর রহমান খান রানা এবং পরিবারের সংশ্লিষ্টতা উদঘাাটিত হয়। উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৬ জুলাই শামীম ও মামুন বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসে নাই। সংশ্লিষ্ট মামলার আসামী শাহাদাত হোসেন সাধু ও খন্দকার জাহিদুল ইসলাম যথাক্রমে ৯ ও ১১ মার্চ আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৬৪ ধারা মতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিলে মামলার রহস্য উদঘাটন হয়। আরো উল্লেখ্য, রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা বিলম্বে প্রকাশ হওয়ায় মার্চ মাসের তা প্রকাশ করা হলো।
১৮ মার্চ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে জাতীয় সংসদের উপ-নির্বাচনে প্রচারণা কালে খামার মনিরাম স্কুল বাজারে জাপা-আওয়ামী লীগ কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পোষ্টার ছেঁড়া ও চেয়ার ভাংচুর ছাড়াও সংঘর্ষে আব্দুল মালেক আহত হয়। নোয়াখালীর হাতিয়ায় জাহাজমারা বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত পনের জন। আহতরা হলো- উপজেলা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল উদ্দিন, নাসের, রুবেল, নেছার, ফারুক ও নাছিরসহ পনের জন। ১৯ মার্চ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে প্রস্তাবিত রাসেল নগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, লুটপাট ও পনেরজন আহত হয়। আওয়ামী লীগ নেত্রী নাজমা বেগম ও বিউটি আক্তার কুট্টি সমর্থকদের মধ্যে ১৮ ও ১৯ মার্চ দু’দিন সংঘর্ষে রিমি বেগম, আব্দুর রহিম, মোকছেদ ও রহিমুনের বাড়ী ঘরে হামলাসহ ভাংচুর করা হয়।
২২ মার্চ নোয়াখালীর হাতিয়ায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত পনের জন। আহতরা হলো- সাহাব উদ্দিন, মনির উদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, শাহরাজ ও জামাল উদ্দিনসহ পনের জন। চরকিং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন মহিন এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং চরকিং ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। ২১ মার্চ রাজশাহী বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন প্রকল্পে সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল করীমকে পাম্প মেশিনের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য চাপ দিতে নিজ কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে বাগমারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম সান্টু তাকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে। ২৬ মার্চ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ইছাখালী এলাকায় মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত চল্লিশ জন। স্থানীয় আওয়ামী লীগের উদ্দ্যোগে দু’টি অনুষ্ঠানে যোগদান করা নিয়ে কয়েতপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম গ্রুপ এবং কয়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জাভেদ আলী গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ ও ব্যাপক ভাংচুর করা হয়। পুলিশ ঘটনা নিয়ন্ত্রণে ৪০-৫০ রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষোপ করে। সংঘর্ষে আহতরা হলো- ইউপি সদস্য আলতাফ হোসেন, জোৎস্না বেগম, আরজুদা, হাশি, ফেরদৌসী, পুলিশ সদস্য শেখ মোঃ আতিকুর রহমান, আলাউদ্দিন, দিক বিজয়, দীন ইসলাম, রিফাত, নূর আলম, জামাল বাদশা, শাহাদাত, রবিউল ইসলাম, ফয়সাল, জোবায়ের, সাকিব, আবিদ, মোহাম্মদ আলী, আবুল হোসেন, রুবেল ও আলাওলসহ চল্লিশ জন। মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে এম. রহমান শপিং কমপ্লেক্সের সামনে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গোলাম সরওয়ার কবিরের সমর্থকদের সাথে এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষে আহত দশজন। নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে মানিক্যনগর গ্রামে সুদের টাকার জন্য হিন্দুদের জমি রেজিষ্ট্রি করে দেয়ার দাবীতে স্কুল শিক্ষিকা গীতা রাণীর বাড়ীতে তালা ঝুলিয়ে দেয় আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দিন। উল্লেখ্য, গীতারাণী তার ভাইয়ের জন্য এই টাকা সুদে নেয়।
২৭ মার্চ ঝালকাঠি সদরে গোবিন্দ ধবল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে বিরোধে প্রধান শিক্ষক আব্দুল লতিফের হাত-পা ভেঙ্গে দেয় আওয়ামী লীগ নেতা ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খান। [চলবে]

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ