ঢাকা, মঙ্গলবার 18 April 2017, ৫ বৈশাখ ১৪২৩, ২০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দেশের স্বার্থ বিরোধী চুক্তি জনগণ মানবে না

দেশ বিরোধী চুক্তির প্রতিবাদে হালিশহর থানা জামায়াতে ইসলামীর বিক্ষোভ মিছিলের একাংশ

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত চট্টগ্রাম মহানগরী জামায়াতের সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর শেষে আজ জনগণের প্রশ্ন এই সফর কি সফল না ব্যর্থ? মানুষ হিসাব করছে আমরা কতখানি দিলাম আর কতখানি পেলাম। দেশের জনগণ এ সফরের মধ্যে ৩টা জিনিস ভারতের কাছ থেকে প্রত্যাশা করেছিল। এক : তিস্তা চুক্তির মাধ্যমে পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়। দুই : সীমান্তে বাংলাদেশী নাগরিক হত্যা বন্ধ। তিন : দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য বৈষম্য হ্রাস করা কিন্তু তা হয়নি। ভারতের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে প্রতিরক্ষা সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ায় দেশের জনগণ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, ভারতের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত তিস্তা নদীর পানির হিস্যা এদেশের জনগণের ন্যায্য অধিকার। ভারত তিস্তা, গঙ্গাসহ দু'দেশের ওপর দিয়ে প্রবাহিত ৫৪টি নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা প্রাপ্তি থেকে বাংলাদেশের জনগণকে বঞ্চিত করে রেখেছে। এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক পানিবন্টন নীতি ও প্রথাকে ভারত অগ্রাহ্য করেছে। অপরদিকে যে প্রতিরক্ষা চুক্তি করা হয়েছে তাতেও ভারতের স্বার্থ প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। সরকার দেশের স্বার্থ বিসর্জন দিয়ে ভারতের সাথে যে চুক্তি ও সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর করেছে দেশের জনগণ তা মেনে নেবে না। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে ভারতের সাথে স¤পাদিত চুক্তি জনগণের সামনে প্রকাশ করার জন্য জোরদাবি জানান।
জামায়াতে ইসলামী চট্টগ্রাম মহানগরী চকবাজার ও হালিশহর এবং ডবলমুরিং থানার উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগরীর মজলিশে শূরার সদস্য এ খালেদুল আনোয়ার ও হাসান তারেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এম এ হান্নান, জহিরুল ইসলাম, নাবিল ফারহান ও সালাম ছিদ্দীক প্রমুখ। সমাবেশ শেষে পৃথক পৃথক বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ