ঢাকা, মঙ্গলবার 18 April 2017, ৫ বৈশাখ ১৪২৩, ২০ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ইসলাম দেশ ও সরকারের দুশমন ইনু মন্ত্রী থাকতে পারে না -খেলাফত আন্দোলন

সাম্রাজ্যবাদের দালালদের মুখোশ উন্মোচন করায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর। তিনি বলেন, সরকারের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে কেউ মন্ত্রী থাকতে পারে না। এটা শপথ ভঙ্গের শামিল। সাম্রাজ্যবাদের দালাল হাসানুল হক ইনু ইসলাম, দেশ ও সরকারের দুশমন। তাকে অবিলম্বে মন্ত্রী পরিষদ থেকে বহিষ্কার করতে হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করার পর যারা আনন্দ-উল্লাস করেছিল, এখন বঙ্গবন্ধু কন্যার সমালোচনার মাধ্যমে তাদের আসল চেহারা উন্মোচিত হয়েছে। তারা সরকারের ভেতরে থাকা ঘাপটি মারা শত্রু।
গতকাল সোমবার বিকালে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের উদ্যোগে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু কর্তৃক কওমী মাদরাসা এবং আল্লামা আহমদ শফীর বিরুদ্ধে অশালীন ও বেয়াদবীমূলক বক্তব্য রাখায় ইনু’র মন্ত্রীত্ব বাতিল ও বিচারের দাবিতে রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরস্থ জামিয়া নূরিয়া ইসলামিয়া থেকে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে সভাপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা সুলতান মহিউদ্দীন, মাওলানা সানাউল্লাহ, মাওলানা ইলিয়াছ মাদারীপুরী ও মাওলানা আফম আকরাম হুসাইন প্রমুখ।
মাওলানা আতাউল্লাহ আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী এদেশের সর্বজন শ্রদ্ধেয় বুজুর্গ আল্লামা আহমদ শফীসহ দেশের ওলামায়ে কেরামকে সম্মান করায় হাসানুল হক ইনুসহ ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিকগোষ্ঠীর গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। দেশে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমন, আদর্শ নাগরিক তৈরি, সামাজিক ও ধর্মীয় অঙ্গনে ওলামায়ে কেরাম যে ভূমিকা রাখছেন, তা ইনুদের গাত্রদাহের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, আজ যারা ওলামায়ে কেরামকে জঙ্গিবাদের হোতা আখ্যা দিচ্ছে, স্বাধীনতা পরবর্তী সময় সরকার উৎখাতে ইনুগংরা যে ত্রাস ও নৈরাজ্য চালিয়ে দেশকে জঙ্গিরাষ্ট্র বানানোর অপতৎপরতা চালিয়েছিল, তা জাতি এখনো ভুলেনি। অবিলম্বে হাসানুল হক ইনু’র মন্ত্রিত্ব বাতিল করে তাঁর বিচার করতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ