ঢাকা, বুধবার 19 April 2017, ৬ বৈশাখ ১৪২৩, ২১ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রাজশাহীতে বিদেশী ছাত্রী রাউধার লাশ তোলার  আদেশ আদালতের

রাজশাহী অফিস : ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ রাজশাহীর বিদেশী ছাত্রী রাউধা আতিফের লাশ পুনঃময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে তোলার আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে রাজশাহী মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালত-১ এর বিচারক মাহবুবুর রহমান এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে প্রকাশ, রাউধার লাশের আরেকবার ময়নাতদন্ত করতে চায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। এ জন্য লাশ কবর থেকে তুলতে সিআইডির পক্ষ থেকে আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। মঙ্গলবার আবেদনের শুনানি শেষে আদালত এ আদেশ দেন। একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশ তোলার জন্য অনুমতি দেয়া হয়েছে। এদিকে রাউধার লাশ উদ্ধারের দিন কলেজ কর্তৃপক্ষ পুলিশকে জানিয়েছিল, তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় ওই দিনই কলেজ কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে নগরীর শাহমখদুম থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করে। এরপর রাউধার লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়। ময়নাতদন্তে তিন সদস্যর একটি মেডিকেল বোর্ডও গঠন করা হয়েছিল। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়, রাউধা আত্মহত্যা করেছেন। পরে পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে রাউধাকে রাজশাহী নগরীর হেতেমখাঁ কবরস্থানে দাফন করা হয়। এরপর মালদ্বীপের দুই পুলিশ কর্মকর্তা রাজশাহীতে এসে ঘটনা তদন্ত করেন। দেশে ফিরে গিয়ে তারা জানান, রাউধাকে হত্যার কোনো প্রমাণ তারা পাননি। রাউধার মৃত্যুর ঘটনায় কলেজের পক্ষ থেকেও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সে কমিটিও তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, রাউধা আত্মহত্যা করেছেন। তবে গত ১০ এপ্রিল রাউধার বাবা ডা. মোহাম্মদ আতিফ রাজশাহীর আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে তিনি রাজশাহীতেই অবস্থান করছেন। তিনি দাবী করেছেন, রাউধাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ মামলায় রাউধার সহপাঠি সিরাত পারভীন মাহমুদকে (২১) একমাত্র আসামি করা হয়েছে। সিরাতের বাড়ি ভারতের কাশ্মিরে। সিরাতের বিরুদ্ধে মামলা হলেও এখন পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করা হয়নি। সিআইডি বলছে, কেবল হত্যার প্রমাণ মিললেই তাকে গ্রেফতার করা হবে। তবে তাকে নজরদারির ভেতরে রাখা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ