ঢাকা, মঙ্গলবার 17 October 2017, ২ কার্তিক ১৪২8, ২৬ মহররম ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মিসবাহ-ইউনিসের বিদায়ী টেস্ট সিরিজ কাল থেকে শুরু

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক : ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে কাল থেকে শুরু হওয়া তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শেষেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক ও সাবেক অধিনায়ক ইউনিস খান। মিসবাহ-ইউনিসের বিদায়ী টেস্ট সিরিজ জয় দিয়ে শেষ করার লক্ষ্যেই মাঠে নামবে পাকিস্তান। আর দেশের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে এখনো সিরিজ না হারের রেকর্ড ধরে রাখার মিশনে শুরু করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জ্যামাইকার সাবিনা পার্কে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় আগামীকাল থেকে শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। 

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বিদায় জানানোর সিদ্বান্ত চলতি মাসেই জানিয়ে দেন মিসবাহ। অধিনায়কের সিদ্বান্তের কিছুদিন পর ক্যারিবীয় সফর শেষে ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর কথা জানান অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ইউনিসও। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাকিস্তানের কাছে এই সিরিজটি, মিসবাহ-ইউনিসময় সিরিজ। 

মিসবাহ-ইউনিসের সিরিজটি জয় দিয়ে শেষ করতে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ওয়ানডে ও টি-২০ অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান ক্রিকেটে তাদের অবদান অনেক। মিসবাহ-ইউনিসের পারফরমেন্সে পাকিস্তান ক্রিকেট বহুবারই আনন্দ করার উপলক্ষ্য পেয়েছে। এবার তাদের বিদায়টা আনন্দায়ক করতে চাই আমরা।’

তবে সিরিজ নিয়ে এখনই ভাবচ্ছেন না পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ। ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে ভালোভাবে সিরিজ শেষ করতে বদ্ধপরিকর তিনি, ‘সিরিজ তিন ম্যাচের। প্রত্যক ম্যাচ নিয়েই আমাদের আলাদা-আলাদা পরিকল্পনা থাকবে। ম্যাচ ধরে এগোতে পারলে সিরিজ জয় সহজ হবে। ক্যারিয়ারের শেষ সিরিজটি স্মরনীয় করতে রাখার লক্ষ্য আমারও রয়েছে। প্রথমবারের মত ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সিরিজ জিততে পারলে শেষটা অনেক বেশি স্মরনীয়ই থাকবে আমার ও ইউনিসের। সেই চেষ্টাই করবো আমরা।’

মিসবাহ-ইউনিসের বিদায়ী সিরিজটি নিজেদের করে রাখতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সিরিজ জয়ের জন্য অতীত রেকর্ড আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে ক্যারিবীয়দের। নিজেদের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে এখন পর্যন্ত কোন টেস্ট সিরিজ হারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সাতটি টেস্ট সিরিজের মধ্যে চারটি জিতেছে ক্যারিবীয়রা। বাকী তিন সিরিজ হয় ড্র। তাই অতীত রেকর্ড থেকে লড়াই করার রসদ খুঁজছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডার, ‘আমাদের কাছে এই সিরিজটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। নিজেদের প্রমানের দারুন এক সুযোগ আমাদের সামনে। পাকিস্তান অনেক বেশি শক্তিশালী। তারপরও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো ভালো ক্রিকেট খেলার জন্য। অতীতে আমাদের এখানে এসে কখনো সিরিজ জিততে পারেনি পাকিস্তান। এবারও পাকিস্তানকে রুখে দিতে পারবো বলে আমি আশাবাদি। তবে সিরিজে শুরুটা ভালো করতে হবে এবং পরবর্তীতে তা অব্যাহত রাখতে হবে। তিন বিভাগেই ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে আমাদের।’

অন্য একটি অতীত রেকর্ডে বেশ এগিয়ে পাকিস্তান। ২০০০ সালের পর থেকে পাকিস্তানের বিপক্ষে কোন টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি ক্যারিবীয়রা। ২০০০ সালের পর পাঁচটি সিরিজের মধ্যে তিনটিতে জিতেছে পাকিস্তান। দু’টি হয় ড্র। এখন পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান মোট ১৬টি সিরিজ খেলেছে। এরমধ্যে ৫টি করে সিরিজ জিতেছে দু’দল। আর ৬টি সিরিজ হয় ড্র। 

পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের পরের দু’টি ম্যাচ হবে ৩০ এপ্রিল ও ১০ মে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্কোয়াড(সম্ভাব্য) : জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), দেবেন্দ্র বিশু, জার্মেন ব্ল্যাকউড, ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েইট, রোস্টোন চেস, মিগুয়েল কামিন্স, শেন ডরউইচ (উইকেটরক্ষক), শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, শিমরন হেটমায়ার, শাই হোপ, আলজারি জোসেফ, কাইরন পাওয়েল ও বিশাল সিং। 

পাকিস্তান স্কোয়াড(সম্ভাব্য) : মিসবাহ-উল-হক (অধিনায়ক), সরফরাজ আহমেদ (সহ-অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), আহমেদ শেহজাদ, আজহার আলী, শান মাসুদ, বাবর আজম, ইউনিস খান, আসাদ শফিক, ইয়াসির শাহ, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, শাহদাব খান, উসমান সালাউদ্দিন, হাসান আলী, মোহাম্মদ আব্বাস ও মোহাম্মদ আসগর। সূত্র: বাসস। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ