ঢাকা, শুক্রবার 21 April 2017, ৮ বৈশাখ ১৪২৩, ২৩ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

চবিতে ছাত্রলীগ-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ৭

চট্টগ্রাম অফিস : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আবদুল্লাহ আল কায়সার শাকিল নামে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগের এক কর্মীকে পরীক্ষা দিতে না দেয়ার জের ধরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে এ ঘটনা ঘটে। এতে ৫ পুলিশসহ ৭ জন আহত হয়েছেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চট্টগ্রাম শহরে চলাচলকারী শাটল ট্রেন বন্ধ করে দেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। বহিষ্কার করা হয়েছে চবি শাখা ছাত্রলীগের দুই নেতাকে। কায়সার চবি ছাত্রলীগ কর্মী এবং বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা মিজানুর রহমান বিপুলের অনুসারী। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন, হাটহাজারী থানার এসআই মহসিন আলী, কনস্টেবল রফিকুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন, শরিফুল ইসলাম ও ইমাম হোসেন। 

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আকতারুজ্জামান জানান, চবি প্রশাসন কর্তৃক বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ কর্মী আব্দুল্লাহ আল কায়সারকে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ চতুর্থ বর্ষের স্নাতক ফাইনাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়নি পরীক্ষা কমিটির সদস্যরা। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সেখানে জড়ো হয়। এরপর পুলিশ গিয়ে লাঠিচার্জ করে তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। পরে তারা ক্যাম্পাসের গোলচত্বরে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূলফটক বন্ধ করে দেয়। এসময় পুলিশ গিয়ে মূলফটক খুলে দিতে চাইলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ লিপ্ত হয় ছাত্রলীগ কর্মীরা। সংঘর্ষের পর চবি কতৃপক্ষ যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ চতুর্থ বর্ষের স্নাতক ফাইনাল পরীক্ষা স্থগিত করেছে। এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার দায়ে চবি ছাত্রলীগের দুই নেতাকে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ কেন্দ্রিয় কমিটি। তারা হলেন, চবি ছাত্রলীগের উপ দপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান বিপুল ও সহ-সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়সার শাকিল। 

বিভাগের পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাকারিয়া সাংবাদিকদের জানান, কায়সার চতুর্থ বর্ষের স্নাতক ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ নিতে বিভাগে গেলে বহিষ্কৃত হওয়ায় কায়সারকে পরীক্ষায় অংশ নিতে দেননি পরীক্ষা কমিটির সদস্যরা। পরে এ খবর ছড়িয়ে পড়েল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সামনে এসে জড়ো হয়। পুলিশ এসে তাদের লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দিলে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়। এ সময় পুলিশের পাঁচ সদস্য ও ছাত্রলীগের এক কর্মী আহত হয়। সেইসঙ্গে একজনকে আটক করে পুলিশ। তবে কিছুক্ষণ পর তালা খুলে দেয় নেতাকর্মীরা। পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাকারিয়া জানান, অন্য পরীক্ষাগুলো রুটিন অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোর অধ্যাপক আলী আজগর জানান, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একপক্ষের নেতা মাহবুবুল হক শাহীনের ওপর হামলা ও তার একটি আঙ্গুল কেটে নেয়ার ঘটনায় ২০১৬ সালে যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শির্ক্ষাথী আবদুল্লাহ আল কায়সারকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করে প্রশাসন। দুই বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে তিনি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার চেষ্টা করলে প্রশাসন বাধা দেয়। এর প্রতিবাদে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা পরীক্ষায় বাধা দেয়। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি সুজন জানান, বৃহস্পতিবারের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আবদুল্লাহ আল কায়সার, উপদপ্তর সম্পাদক মিজানুর রহমান বিপুলকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ