ঢাকা, শনিবার 22 April 2017, ৯ বৈশাখ ১৪২৩, ২৪ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

লক্ষ্মীপুরে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা : লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে ভাতা প্রাপ্ত অর্ধশতাধিক মুক্তিযোদ্ধা ভূয়া বলে দাবী করছেন জেলা ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক নেতৃবৃন্দ। ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ায় বর্তমানে অভিযোগকারীদেরকে প্রাণনাশের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।
মঙ্গলবার সকালে লক্ষ্মীপুর শহরে বাগবাড়ি এলাকায় স্থানীয় পত্রিকা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তাঁরা। 
জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার হুমায়ন কবির তোফায়েল মিয়া,একাত্তরে ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির জেলা শাখার আহবায়ক ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক ডিপুটি কমান্ডার মো. সামছুদ্দিন পাটওয়ারী ও  সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার আবুল বাশার মাষ্টার লিখিত অভিযোগে জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী সারা দেশে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়। গত ১১ ফেব্রুয়ারী থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মুক্তিযোদ্ধাদের উপস্থিতিতে যাচাই-বাছাই কার্যক্রম শেষ হয়।
এ সময় ভাতাপ্রাপ্ত আকবর ভূইয়া, সাহাবুদ্দিন, ছালেহ আহম্মদ, লিয়াকত আলী ও মোবারক হোসেনসহ অর্ধশতাধিক মুক্তিযোদ্ধা ভুয়া প্রমাণিত হয়। এতে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধারা অভিযোগকারী মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে নানান হয়রানীসহ প্রাণনাশের বিভিন্ন হুমকি-ধমকি দিয়েছিলো। ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী,মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তাঁরা।
তবে আকবর ভূইয়া ও সাহাবুদ্দিন হুমকির বিষয়টি মিথ্যা বলে দাবী করছেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা শামছুল ইসলাম চৌধুরী, আবদুর রহিম, অবসরপ্রাপ্ত নায়েক লাতু মিয়া, মোজাম্মেল হক ভূলুসহ জেলা ও উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারা।
এ ব্যাপারে সদর আসনের সাংসদ ও সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি এ কে এম শাহজাহান কামাল জানান, সদর উপজেলায় ২০-৩০জন ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা প্রমাণিত হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ