ঢাকা, শনিবার 22 April 2017, ৯ বৈশাখ ১৪২৩, ২৪ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

মান্দায় একই রশিতে ঝুলে প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা

নওগাঁ সংবাদদাতা : নওগাঁর মান্দায় একই রশিতে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে গোলাম রাব্বানী (২২) এবং তছলিমা আক্তার (১৭) নামে প্রেমিক-প্রেমিকা যুগল আত্মহত্যা করেছে। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার সময় উপজেলার চকরাজাপুর গ্রামের গোদাবিলা নামক বিলের মধ্যে একটি আম গাছ থেকে মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়। এলাকার শতশত নারী-পুরুষ ঐ আম গাছের পার্শ্বে দু’জনকে দেখতে উপচে পড়া ভিড় জমে যায়। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।
স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার সাতবাড়িয়া টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম কলেজের চলতি এইচ.এস.সি পরীক্ষার্থী ও প্রসাদপুর ইউনিয়নের চকরাজাপুর (পূর্বপাড়া) গ্রামের ওয়াজেদ আলীর ছেলে গোলাম রাব্বানী এবং এনায়েতপুর আইডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের এবারের এসএসসি ফলপ্রার্থী একই এলাকার (জাঙ্গালপাড়া) গ্রামের মৃত মকবুল হোসেন সরদারের মেয়ে তছলিমা আক্তারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। তাদের প্রেমের সম্পর্ক গভীর হলে এক সময় দ’ুজনে বিয়ে করতে সম্মত হয়। ঘটনাটি ছেলের পরিবারকে জানানো হয়। কিন্তু মেয়ের পরিবারের গরিব হওয়ায় প্রেমিক গোলাম রাব্বানীর পরিবার ঐ বিয়েতে রাজি ছিল না। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দেয়। গত মঙ্গলবার তছলিমা তার মায়ের সাথে রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। রাতের কোন এক সময় বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে বাড়ির পাশে গোদাবিলা নামক স্থানের মাঝখানের একটি আম গাছের ডালে একই রশির দু’মাথায় গোলাম রাব্বানী ও তছলিমা আক্তার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। বুধবার ভোরে  তছলিমার মা খোদেজা বেগম মেয়েকে খোঁজাখুজি শুরু করেন। পরে বাড়ির বাহিরে এসে বিলের মাঝে আম গাছে দ’ুজনে ঝুলে আছে দেখতে পেয়ে চিৎকার শুরু করেন।
মান্দা থানার পরিদর্শক আনিছুর রহমান জানান, দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মেয়ের পরিবার থেকে মেয়েকে অন্য ছেলের সাথে বিয়ে দেয়ার কথাবার্তা চলছিল। এছাড়া ছেলের পরিবারও হয়ত ঐ প্রেমের সম্পর্ক মেনে নেয়নি। ফলে ক্ষোভের বসে তারা আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। সকালে স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো  হয়েছে। ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ