ঢাকা, শনিবার 22 April 2017, ৯ বৈশাখ ১৪২৩, ২৪ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বগুড়ার শেরপুরে সরকারি জায়গা দখল করে বাড়ি নির্মাণ!

শেরপুর (বগুড়া) সংবাদদাতা : বগুড়ার শেরপুরের বিশ্বা গ্রামের পতিহার পুকুরপাড়ের সরকারি গাছ কর্তন ও জায়গা জোরপূর্বক দখল করে কথিত ভূমিহীন নেতা গত কয়েকদিন ধরে পাকা ঘর নির্মাণ করলেও সংশ্লিষ্টমহল ব্যবস্থা না নেওয়ায় এলাকায় চাপা ক্ষোভের সৃস্টি হয়েছে।
স্থানীয় সূত্র জানাযায়, গত কয়েকদিন যাবত শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বিশ্বা পতিহার পুকুরের দক্ষিণ পাড়ের মৃত দেলবার হোসেনের ছেলে কথিত ভুমিহীন নেতা মো. ছমির উদ্দিন ও একই পাড়ের মৃত দায়মালির ছেলে আফছার আলী মেম্বার দু’জন মিলে ওই পুকুর পাড়ের বড় একটি কাঠালগাছ কেটে নিয়ে যায়। পরে তারা গত বুধবার (১২ এপ্রিল) থেকে পতিহার পুকুরপাড়ের খাস খতিয়ানভুক্ত ৭৫৭ দাগের প্রায় ৭ শতক সরকারি জায়গা জোরপূর্বক দখল করে পাকাঘর নির্মাণ করছে। এলাকাবাসি ভবানীপুর উপ সহকারি ভূমি কর্মকর্তা আব্দুস শুক্কুরকে বিষয়টি মৌখিক ভাবে জানালে তিনি এখনও ভূমি দখলদারদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় তারা দাপটের সাথে পাকাঘর নির্মাণ অব্যহত রেখেছে। আর এ কারনে এলাকায় চাপা ক্ষোভের সৃস্টি হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানিয় লোকজন পক্ষে-বিপক্ষে অবস্থান নেয়ায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। দখলদারদের বিরুদ্ধে প্রসাশন দ্রুত কোনো ব্যবস্থা না নিলে যে কোন সময় সংঘর্ষ ঘটতে পারে। এ বিষয়ে ভবানীপুর উপ সহকারি ভূমি কর্মকর্তা আব্দুস শুক্কুরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি শুনেছি এবং সেখানে আমার লোক পাঠিয়েছি কাজটি বন্ধ করার জন্য। ভবানীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, গাছ কাটা ও ঘর নির্মান করার কথা আমি শুনেছি। তবে খাস জমিতে অবৈধ ভাবে কেউ গাছ কাটতে এবং ঘর নির্মাণ করতে পারে না। বিষয়টি প্রসাশনের খতিয়ে দেখে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।
এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোছা. মোরশেদা খাতুন বলেন-এ বিষয়ে কোন খবর পায়নি তবে অভিযোগ পেলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ