ঢাকা, শনিবার 22 April 2017, ৯ বৈশাখ ১৪২৩, ২৪ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কেশবপুরে রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায়-

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের কেশবপুরে কাকিলাখালি গ্রামে প্রভাবশালী প্রতিপক্ষরা একটি দিনমজুর পরিবারের বাড়ি থেকে বের হওয়ার একমাত্র রাস্তা বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দিয়ে ওই পরিবারটিকে গত ১৫ দিন ধরে অবরুদ্ধ রুদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাৎক্ষণিক বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালেও অজ্ঞাত কারণে তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি বলে পরিবারটির অভিযোগ। গত বৃহস্পতিবার খবর পেয়ে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধ বেড়া উচ্ছেদ করে পরিবারটিকে অবমুক্ত করে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২০০৩ সালে উপজেলার ঝিকরা গ্রামের ইসমাইল বিশ্বাসের ছেলে দিনমজুর মজিবার রহমান তার বাস্তভিটা বিক্রি করে কেশবপুর সাগরদাঁড়ি সড়কের পাশে কাকিলাখালি গ্রামের আজিবার রহমানও তার ভাই মজো মোড়লের কাছ থেকে হাল ১৩৩ দাগের ৮ শতক জমি কিনে বসতবাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। এর ২ বছর পর আজিবার রহমান তার আরও ৫ শতক জমি মজিবারের কাছে বিক্রি করে। কিন্তু আজিবার রহমান সাড়ে ১২ হাজার টাকা নিয়েও দীর্ঘদিনে জমি রেজিস্ট্রি করে না দেয়ায় মজিবার রহমানের সাথে তার বিরোধ শুরু হয়। এরই জের ধরে গত ৫ এুিপ্রল প্রভাবশালী আজিবার রহমান, মজো মোড়ল ও ইসমাইল মোড়ল গ্রাম্য সালিস অমান্য করে মজিবার রহমানের বাড়ির ফলদ ও বনজ গাছ কেটে ক্ষতি সাধন করে তার ৫ শতক জমি জবর দখল করে বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দিয়। ফলে বাড়ি থেকে বের হওয়ার একমাত্র রাস্তা বন্ধ হওয়ায় পরিবারটি অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। 
মজিবার রহমান অভিযোগ করে বলেন, তার বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার সাথে সাথে থানায় গিয়ে অভিযোগ করা হয়। গত ১৫ দিনেও তারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। অবশেষে তিনি এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে গত ১৯ এপ্রিল উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কাছে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরের দিনই তিনি ওই অবৈধ বেড়াটি উচ্ছেদ করেন।
এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ আজিবার রহমান বলেন, তার আমার জমি দখল করে বাড়ি করেছে। সে জন্যে জমি দখল করে বেড়া দেয়া হয়েছিল। 
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. কবির হোসেন সাংবাদিকদের জানান, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় তার যে ঘরে বৈদ্যুতিক মিটার লাগানো ছিল সেই ঘরসহ এক জন মানুষ চলতে পারে এমন একটু জায়গা রেখে প্রতিপক্ষ আজিবার রহমানরা ৫ শতক জমি বেড়া দিয়ে ঘিরে রেখেছে। গত ২০ এপ্রিল ওই অবৈধ বেড়া উচ্ছেদ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ