ঢাকা, রোববার 23 April 2017, ১০ বৈশাখ ১৪২৩, ২৫ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আমিরের তাণ্ডবের পর চেস-ডরউইচের প্রতিরোধ

স্পোর্টস ডেস্ক : পাকিস্তানের বোলারদের সামনে, বিশেষ করে মোহাম্মদ আমিরের সামনে মুখ থুবড়ে পড়া স্বাগতিকদের বড় লজ্জার হাত থেকে রক্ষা করেছেন রোস্টন চেস ও শন ডরউইচ। ষষ্ঠ উইকেটে তাদের ১১৮ রানের জুটিতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম দিন শেষ করতে পেরেছে ৭ উইকেটে ২৪৪ রানে। দিনের খেলা ৯ ওভার আগেই শেষ হয়ে যায় আলোর স্বল্পতার কারণে। আমিরের বোলিং তোপে শুরুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অবস্থা ছিল ভয়াবহ। একটা সময় ৭১ রানে ক্যারিবিয়ানরা হারিয়েছিল ৫ উইকেট, সেখান থেকে দলের হাল ধরে বিপর্যয় কাটান চেস-ডরউইচ। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রথম ধাক্কাটা দেন অবশ্য অভিষিক্ত পেসার মোহাম্মদ আব্বাস। এই পেসারের বলে কোনও রান করার আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন ক্রেইগ ব্রাথওয়েট। এরপরই শুর আমিরের তান্ডব। অভিষিক্ত শিমরন হেটমারকে (১১) বোল্ড করে আমির খোলেন উইকেটের খাতা। খানিক পর তিনি প্যাভিলিয়নে ফেরান শাই হোপকে (২)। আমিরের সঙ্গে উইকেট উৎসবে নাম লেখান ওয়াহাব রিয়াজও, ৯ রান করা বিশাল সিংকে আজহার আলীর হাতে ক্যাচ বানিয়ে। একপ্রান্ত থেকে উইকেট হারালেও ওপেনার কিয়েরন পাওয়েল চালিয়ে যাচ্ছিলেন লড়াই, যদিও তার প্রতিরোধের দেয়াল ভাঙেন সেই আমির। এই পেসারের বলে ইউনিস খানের হাতে ধরা পড়ার আগে পাওয়েল করেন ৩৩ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর তখন ৫ উইকেটে ৭১!
রোস্টন চেস খেলেছেন ৬৩ রানের কার্যকরী ইনিংস। কঠিন ওই পরিস্থিতি থেকে স্বাগতিকদের বের করে নিয়ে আসেন চেস-ডরউইচ। সময় উপযোগী ব্যাটিংয়ে বাড়িয়ে নেন দলের স্কোর। দুজনই পূরণ করেন হাফসেঞ্চুরি। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে গুরুত্বপূর্ণ ১১৮ রান যোগ করে পথ দেখাচ্ছিলেন ক্যারিবিয়ানদের। যদিও ইয়াসির শাহর আঘাতে পরপর দুই বলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তারা। চেস করেন ৬৩ রান, আর ডরউইচের ব্যাট থেকে আসে ৫৬ রান।  তাদের ফিরে যাওয়ার পর দেবেন্দ্র বিশুকে (২৩*) সঙ্গে নিয়ে দিন পার করে দিয়েছেন অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (৩০*)। প্রথম দিনে পাকিস্তানের সেরা বোলার আমির ২৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ