ঢাকা, রোববার 23 April 2017, ১০ বৈশাখ ১৪২৩, ২৫ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

খুলনায় নাচ শেখানোর কথা বলে যুবতীকে ভারতে পাচার

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগরীতে শিউলি আক্তার (১৭) নামের এক যুবতীকে ভারতে পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগে কাজী রোমানা হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা সায়েরা বেগম  বাদি হয়ে সোনাডাঙ্গা মডেল থানায় একটি মানবপাচার আইনে মামলা দায়ের করেছে।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে আসামী কাজী রোমানা হক নিউমার্কেট বায়তুন নূর শপিং মার্কেট এলাকার বাসিন্দা সায়েরা বেগমের কন্যা শিউলি আক্তারকে নাচ শেখানোর প্রস্তাব দেয়। এরপর থেকে শিউলিকে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নাচে অংশ নেয়ার জন্য প্রায় নিয়ে যেত রোমানা। ২০১৫ সালের ১২ মার্চ শিউলিকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায় রোমানা। পরে শিউলি বাসায় না ফেরায় সায়েরা বেগম রোমানা হককে ফোন করে তার সন্ধান জিজ্ঞাসা করে। রোমানা ঢাকায় আছি বলে জানায়। পরে আর কোন যোগাযোগ করেনি। পরে সায়েরা বেগম অনেক চেষ্টা করেও তার মেয়ে শিউলি ও রোমানার সাথে যোগাযোগ করতে পারেননি। মাস খানেক পরে শিউলি তার মা সায়েরা বেগমকে ফোন করে জানিয়ে দেয় রোমানা ভারতে কোলকাতার একটি পতিতালয়ে বিক্রি করে দিয়েছে। বহু খোঁজাখুঁজি করে শুক্রবার সকালে ৯টার দিকে নিউমার্কেটে আসামী রোমানাকে দেখতে পেয়ে সায়েরা বেগম স্থানীয় লোকজন জড়ো করে। পরে পুলিশ এসে রোমানাকে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় সায়েরা বেগম রোমানা ও আরিফসহ ২/৩ জনকে আসামী করে একটি মানব পাচার আইনে মামলা দায়ের করেন। আসামী রোমানা নগরীর দারোগাপাড়া রূপসা কলেজিয়েট স্কুল সংলগ্ন কাজী ইমদাদুল হকের স্ত্রী।
সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মমতাজুল হক জানান, এ ঘটনার মূল আসামী রোমানাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ