ঢাকা, মঙ্গলবার 25 April 2017, ১২ বৈশাখ ১৪২৩, ২৭ রজব ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আরিফুল শাকিল হেমন্ত তপু ও জুয়েল রানার দলবদলে বাধা নেই

স্পোর্টস রিপোর্টার : অবশেষে ফুটবলারদের পক্ষে রায় দিলো বাফুফের প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটি। অভিযুক্ত পাঁচ ফুটবলার নিজেদের নির্দোষ প্রমাণ করতে পারলো। ফলে দলবদলে অংশ নিতে তাদের আর কোন বাঁধা থাকলো না। তাদের আত্মবিশ্বাস ছিল এ লড়াইয়ে জিতবেন। ফুটবলার আরিফুল ইসলাম, শাকিল আহমেদ, হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস, তপু বর্মন ও জুয়েল রানার লড়াইটা ছিল তাদের পুরনো ক্লাব আবাহনীর সঙ্গে। গত মৌসুমে আবাহনীকে ফেডারেশন কাপ ও প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন করার অন্যতম কারিগর এ পাঁচ ফুটবলার এবার দল পাল্টাতে গিয়েই পড়েছিলেন ঝামেলায়। আবাহনী তাদের কেবল শোকজই করেনি, এক বছরের জন্য নিষিদ্ধও করেছিল। বিষয়টি নিয়ে বাফুফের প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটি বেশ কয়েকটি সভা করে খেলোয়াড়দের পক্ষেই রায় দিয়েছে। গত রোববার রাতে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ি এ পাঁচ ফুটবলারের দলবদলে কোনো বাধা নেই। যেকোনো ক্লাবেই নাম লেখাতে পারবেন তারা।
তবে জানা গেছে, এই পাঁচ ফুটবলার ইতিমধ্যেই নতুন দল ঠিক করে রেখেছে। প্রিমিয়ার লিগে নবাগত সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবে খেলার জন্যই তারা আবাহনী ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তবে আবাহনীর দাবি ছিল মৌসুম শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ ফুটবলাররা তাদের।
এএফসি কাপের জন্য আবাহনী আরিফ-হেমন্তদের ক্যাম্পেও ডেকেছিল; কিন্তু তারা ক্যাম্পে যোগ দেননি। পরে ওই ৫ ফুটবলারকে আবাহনী শো-কজ করে। শো-কজের জবাব দিয়ে ফুটবলাররা ক্যাম্পে যোগ দিতে চাইলেও পরে আবাহনী তাদের অনুমতি দেয়নি। বরং শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে ফুটবলারদের এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে বাফুফেকে চিঠি দেয় আবাহনী।
বাফুফের প্লোয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটির সামনে হাজির হয়ে ৫ ফুটবলার বক্তব্য দেয়ার পাশপাশি লিখিতভাবেই আত্মপক্ষ সমর্থন করেন। আবাহনীও প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটির সামনে তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করে। দুই পক্ষের বক্তব্য শুনে প্লেয়ার্স স্ট্যাটাস কমিটি যে রায় দিয়েছে তাতে জয়ী হলেন ফুটবলাররা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ