ঢাকা, শনিবার 29 April 2017, ১৬ বৈশাখ ১৪২৩, ০২ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

দরপতন হওয়ায় পান চাষীরা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাংক ঋণ মওকুফ দাবী

সরওয়ার কামাল মহেশখালী: মহেশখালীতে পান চাষীরা চরম ক্ষতিগ্রস্তে ৪০হাজার ভুক্তভোগীর ব্যাংক ঋণ মওকুফ দাবী সারা দেশে এক নামে খ্যাত মহেশখালীর মিষ্টি পান। মিষ্টি পানের মুল্য পানির দরে হওয়ায় চাষীরা চরম ক্ষতিগ্রস্তে রয়েছেন তাই সোনালী ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক সহ বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ২০১১-১২ অর্থ বছরে যে সব পানচাষীরা ঋণ নিয়েছে তা সরকার কর্তৃক মওকুফ দাবী করেছে ৪০ হাজার ভুক্তভোগী। চাষীদের তথ্যমতে, মহেশখালীতে দুই ধরনের জায়গায় পান চাষ হয় তৎমধ্যে একটি পাহাড়ে অপরটি বিলে। ১ ভার পানের বরজ সম্পূর্ণ করতে প্রায় ৮ হাজার টাকা প্রয়োজন হয় পাহাড়ী বরজ ১-৩ বছর স্থায়ী হয় অপরদিকে বিল বরজ ৫-৮ মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়। কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, মহেশখালীতে প্রায় ১৪শ হেক্টর জমিতে পান চাষ হয়। বর্তমান সরকারের শরীক দল বাংলাদেশ ইসলামী ঐক্যজোট কক্সবাজার জেলা শাখার স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক, মহেশখালী উন্নয়ন পরিষদের সদস্য সাংবাদিক ডাঃ মৌলানা রুহুল কাদের জানান, মহেশখালীর প্রধান আয়ের উৎস পান চাষ, ১২ মাসই চাষ হয়, চাষীদের পান চাষের ব্যাপারে পর্যাপ্ত পরিমাণে অভিজ্ঞতা থাকলেও আর্থিক ভাবে সমস্যা থাকার কারণে সোনালী ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক সহ বিভিন্ন ব্যাংক থেকে পানচাষীরা যে সব ঋণ নিয়েছে তা সরকার কর্তৃক মওকূফ করে দেওয়া একান্ত প্রয়োজন মনে করছি কেননা পানচাষীরা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্তে আছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ