ঢাকা, সোমবার 01 May 2017, ১৮ বৈশাখ ১৪২৩, ০৪ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এবারের ফুটবল মওসুুমে চমক দেখাতে চায় আরামবাগ

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের খেলোয়াড় দলবদল শেষ হলো। মাসব্যাপী দলবদল হলেও ক্লাবগুলো খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশনের কাজটি শেষ করলো শেষভাগে। ২৭তম দিনে বৃহস্পতিবার মোহামেডান ও শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। ২৯তম দিনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, চট্টগ্রাম আবাহনী ও নবাগত সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করেছে। গতকাল রোববার দলবদলের শেষ দিনে সাতটি ক্লাব (আরামবাগ, বিজেএমসি, ব্রাদার্স ইউনিয়ন, শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব, ফরাশগঞ্জ, রহমতগঞ্জ, ঢকা আবাহনী) এক যোগে খেলোয়াড় রেজিস্ট্র্রেশনের কাজ সম্পন্ন করলো। আগের দিন সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব বাদ্যযন্ত্র নিয়ে বাফুফে অফিসে খেলোয়াড় এনেছিলো জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে। আর শেষ দিনে খেলোয়াড় সমর্থকদের নিয়ে বাদ্যযন্ত্র বাঁজিয়ে বাফুফে ভবনে এসেছিলো আরামবাগ ক্রীড়া চক্র। প্রিমিয়ারে দীর্ঘদিন ধরে খেললেও ক্লাবটি এবার স্বপ্ন দেখছে ভাল ফলাফলের সেই লক্ষ্যে নিয়েই  জাতীয় দলের সাবেক কোচ  মারুফুল হককে দিয়ে দল গুছিয়েছে ক্লাবটি। দেশের একমাত্র উয়েফা লাইসেন্সধারী এই কোচ এই দলটিকে ভাল ফলাফল এনে দেয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েই কাজ করছেন। ৩৫ জনের খেলোয়াড় তালিকায় গত মওসুুমের মাত্র ৫ জন। বোঝাই যায় আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ এ মওসুুমে মাঠে নামবে নতুন একটা দল নিয়ে। বিজেএমসি থেকে আনা ফরোয়ার্ড সোহেল রানা,  শেখ রাসেল থেকে আনা ক্যামেরুনের ডিফেন্ডার ইকাঙ্গা ও নাইজেরিয়ান বুকোলা ছাড়া বাকিরা একেবারেই অচেনা।
খেলোয়াড়দের নিবন্ধন করাতে এসে মারুফুল হক বলেছেন, ‘আমি যখন প্রথম কোচিংয়ে আসি তখন মোহামেডানে পেয়েছিলাম প্রতিষ্ঠিত অনেক খেলোয়াড়। আমি ওই খেলোয়াড়দের নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছি। এখন আমি প্রতিষ্ঠিত কোচ,  অচেনা যাদের নিয়ে নতুন মিশন শুরু করলাম তাদের প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আশা করছি,  মাঠে পারফরমেন্স দিয়ে আমার এই নতুন ছেলেরাই নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করবে।’ছোট দলের বড় কোচ মারুফুল হক এ অচেনা ও অনভিজ্ঞ ফুটবলারদের নিয়ে কতদুর যেতে পারবেন? ‘আমি যখন ক্লাবের দায়িত্ব নেই তখন প্রায় সব ক্লাবেরই ঘর গোছানো শেষ। তারপরও চেষ্টা করেছি যতটা সম্ভব একটা ভালো দল করতে। ক্লাব কর্মকর্তাদের সহযোগিতা ও খেলোয়াড়দের মনোভাব যা,  তাতে আমি ভালো কিছু আশা করতেই পারি। গতবার ষষ্ঠ স্থানে ছিলাম,  এবার তার আশপাশ দিয়েই থাকতে চাই।’ক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব মমিনুল হক সাঈদ বলেছেন, ‘আমাদের দলটি তরুণ খেলোয়াড়দের নিয়ে গড়া। তবে আমরা দেশের সেরা কোচকেই নিয়েছি। আমরা চাই আরামাগের এ তরুনদের মধ্যে থেকেই দেশে নতুন নতুন খেলোয়াড় তৈরী হোক।’
আরামবাগ দল:
গোলরক্ষক : প্রিতম,  আক্কাস শেখ,  সাইদুর রহমান,  রাজু আহমেদ। ডিফেন্ডার : আতিকুজ্জামান,  মেহেদী হাসান মিম,  জহিরুল ইসলাম বাবু,  মুরাদ,  জিনটু,  পারভেজ,  জালাল মিয়া,  মাহমুদুল হাসান কিরণ,  এনকুরুমেহ (নাইজেরিয়া),  আবু রায়হান,  রকি,  রবিউল,  হুমায়ুন,  খলিল। মিডফিল্ডার : অনিক ঘোষ,  হাবিবুর রহমান সোহাগ,  মোকাররম,  সাদ্দাম,  শাহরিয়ার বাপ্পী,  ওমর ফারুক,  হানিফ,  আরাফাত হোসেন,  ইকাঙ্গা (ক্যামেরুন),  গালিব নেওয়াজ।ফরোয়ার্ড : সোহেল রানা,  রাজন মিয়া,  সুফিয়ান,  এনামুল ইসলাম,  সুমন আলী,  জুয়েল,  বুকোলা ওলালেকান (নাইজেরিয়া)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ