ঢাকা, বুধবার 03 May 2017, ২০ বৈশাখ ১৪২৩, ০৬ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

‘ওয়াই-ফাইয়ের’ নিরাপত্তা

আবু হেনা শাহরীয়া: অনেকেই এখন বাসায় কিংবা পাবলিক প্লেসে ওয়াই-ফাই ব্যবহার করেন। এর জন্য দরকার হয় রাউটার। এর মাধ্যমেই ইন্টারনেটের সঙ্গে হ্যান্ডসেট, ট্যাব বা ল্যাপটপ যুক্ত হয়। অর্থাৎ ডাটা আদান-প্রদান এর মধ্য দিয়েই হয়। আমরা অনেক ব্যাপারে সচেতন হলেও ওয়াই-ফাইয়ের নিরাপত্তার বিষয়ে একেবারেই বেখবর। এর নিরাপত্তার জন্য আমরা একটি পাসওয়ার্ডের ব্যবহার করে থাকি। তবে এর পাশাপাশি আরো নানাভাবে এর নিরাপত্তা বাড়ানো যায়। তারপরও এর নেটওয়ার্ক কিছুটা বিস্তৃত হওয়ায় নিরাপত্তার দিক থেকেও এটি ঝুঁকিমুক্ত নয়, তবে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। ওয়েব ব্রাউজার থেকে রাউটারের অ্যাডমিনিস্ট্রেশন প্যানেলের সেটিংস থেকে নিরাপত্তা বাড়ানো যায়। নিয়ম দেখুন এই লিংকে: goo.gl/lS5iXq
আপডেট করুন রাউটারের ফার্মওয়্যার: একই রাউটার অনেক দিন ব্যবহার করার পর যখন আপনি তাতে নতুন কোনো ডিভাইস সংযোগ করতে যাবেন, তখন কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই রাউটারের ম্যানুফ্যাকচারিং ওয়েবসাইট থেকে এর ফার্মওয়্যারটি আপডেট করে নিতে পারেন। এতে নতুন ডিভাইসগুলোর সঙ্গে কানেকশন পেতে আর ঝামেলা পোহাতে হবে না। রাউটারের ম্যানুফ্যাকচারিং ওয়েবসাইট থেকে আপডেট ফাইলটি ডাউনলোড করে অ্যাডমিনিস্ট্রেশন প্যানেলের মাধ্যমে রাউটারে আপলোড করতে হবে। পুরো প্রক্রিয়াটির সময় রাউটার অন রাখতে হবে এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাবে না। কাজেই ফার্মওয়্যার আপডেট করার সময় অবশ্যই সময়ের ব্যাপারটা মাথায় রাখতে হবে। বিস্তারিত www.wikihow.com/Update-Router-Firmware
WPS অপশন অফ রাখুন: বেশির ভাগ রাউটারেই WPS  বা ওয়াই-ফাই প্রটেক্টেড সেটআপ নামের অপশনটি থাকে। এর কাজ হচ্ছে একটি ডিভাইস একবার কানেক্ট করার পর নতুন করে কানেক্ট করার সময় আপনাকে বারবার পাসওয়ার্ড দিতে হবে না। তবে এর একটি বড় অসুবিধা হচ্ছে আপনার মতো হ্যাকারদের জন্যও এই অপশনে কিছু সুবিধা থাকে। অর্থাৎ হ্যাকারদেরও সুবিধা হয় এ অপশন চালু থাকলে। অ্যাডমিনিস্ট্রেশন প্যানেল থেকে খুব সহজেই এ অপশনটি ডিজেবল করে দেওয়া যাবে। তবে রাউটারভেদে সেটিংসে কিছু পার্থক্য থাকতে পারে। যেভাবে করবেন www.tp-link.in/faq-497.html বদলে ফেলুন পাসওয়ার্ড: রাউটার কেনার সময় থেকেই একটি ডিফল্ট পাসওয়ার্ড দেওয়া থাকে। আপনার রাউটারের নিচে অথবা ম্যানুফ্যাকচারিং ওয়েবসাইট থেকেও নেওয়া যাবে এই ডিফল্ট পাসওয়ার্ডটি।  সমস্যা হচ্ছে যেহেতু এই পাসওয়ার্ড প্রায় সবারই জানা থাকে, তাই যে কেউ চাইলে আপনার রাউটারের অ্যাডমিনিস্ট্রেশন প্যানেলে গিয়ে সেটিংস পরিবর্তন করতে পারবে। কাজেই রাউটার কেনার পরপরই একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিয়ে অ্যাডমিন প্যানেলটি সুরক্ষিত করুন। ওয়াই-ফাইয়ের জন্যও সেট করে ফেলুন একটি ১২ ডিজিটের পাসওয়ার্ড। আর আপনার নেটওয়ার্কে WPA2-AES এনক্রিপশন ব্যবহার করতে ভুলবেন না। দেখুন: www.tp-link.com/us/faq-191.htm
SSID ব্রডকাস্ট বন্ধ করুন:  যখনই আপনি রাউটার ব্যবহার করা শুরু করবেন তখন থেকেই আপনার রাউটারের নাম কিন্তু নেটওয়ার্কে দেখানো হবে। এর একটি অসুবিধা হচ্ছে হ্যাকাররা মাঝেমধ্যে এই সুযোগে আপনার পারসোনাল নেটওয়ার্কে হানা দিতে পারে। চাইলেই এ ঝামেলা থেকে পুরোপুরি মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আপনাকে যা করতে হবে তা হচ্ছে, রাউটারের অ্যাডমিন প্যানেল থেকে SSID  ব্রডকাস্ট বন্ধ করে দিতে হবে। তার পর থেকে আপনার নেটওয়ার্কে যেকোনো ডিভাইস কানেক্ট হতে গেলে তার নাম ও পাসওয়ার্ড দুটোই জানা থাকতে হবে। আরো দেখুন: https://goo.gl/T3KzIJ অ্যাড্রেস রিজার্ভেশন: আপনার রাউটারে যতগুলো ডিভাইস কানেক্টেড আছে, তাদের প্রতিটিকে যদি একটি করে স্ট্যাটিক আইপি দিতে পারেন, তাহলে আপনার পুরো নেটওয়ার্কটি হয়ে উঠবে দ্রুত, নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য। এ ছাড়া আপনি এও দেখতে পারবেন কোন কোন ডিভাইস আপনার রাউটারে কানেক্টেড হচ্ছে। তখন যে ডিভাইসগুলো আপনার পরিচিত নয় সেগুলোকে খুব সহজেই আলাদা করে ফেলতে পারবেন। বিস্তারিত: www.tp-link.in/faq-182.html
ম্যাক ফিল্টারিং: অপরিচিত ডিভাইসকে আপনার নেটওয়ার্ক থেকে দূরে রাখতে চান? ম্যাক ফিল্টার করে দেখুন। রাউটারের অ্যাডমিন প্যানেল থেকে অ্যাড্রেস ফিল্টারিং অপশনে যেতে হবে। তারপর সেখানে প্রতিটি ডিভাইসের ম্যাক অ্যাড্রেস বসিয়ে দিতে হবে। আর ম্যাক অ্যাড্রেস খুঁজে বের করার জন্য উইন্ডোস পিসি’র কমান্ড প্রম্পটে গিয়ে মবঃসধপ টাইপ করতে হবে। বিস্তারিত: www.tp-link.in/faq-155.html
হটস্পটে অটো কানেক্ট নয়: ওপেন ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কে কখনোই অটো কানেক্ট করা ঠিক নয়। অটোমেটিক কানেকশন ডিজেবল করতে হলে কন্ট্রোল প্যানেল থেকে নেটওয়ার্ক অ্যান্ড শেয়ারিং সেন্টার থেকে ম্যানেজ ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কে যেতে হবে। তারপর সেখান থেকে সুবিধামতো সেটিংস পরিবর্তন করে নেওয়া যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ