ঢাকা, রোববার 07 May 2017, ২৪ বৈশাখ ১৪২৩, ১০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

সিটি মেয়রের সাথে চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদ নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় সভা

চট্টগ্রাম অফিস: নাগরিক স্বার্থ এবং পৌরকর পুনঃমূল্যায়ন সংক্রান্ত বিষয়ে  ৩০ এপ্রিল রবিবার, বিকেলে নগরভবনের সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এর সাথে চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ড. মুহম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম করদাতা সুরক্ষা পরিষদের সভাপতি মো. নুরুল আবসার, সাধারন সম্পাদক প্রফেসর মোহাম্মদ আমির উদ্দিন, উপদেষ্টা সাবেক সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস পপি, মোহাম্মদ জহিরুল হক, সাজ্জাদ উজ জামান, মো. সিরাজুল ইসলাম, মোহাম্মদ ওসমান গনি, কাজী আনোয়ার,  জাফর আহম্মদ, মো. ইকবাল, মো. সাইফুল ইসলাম, মো. হাসান ইমরান, মো. শামসুল আলম দুলাল, মো. হারুন উর রশিদ, মো. নুরুল ইসলাম, মো. জসিম উদ্দিন, মফিজুর রহমান, লোকমান, মো. ফিরোজ আহমদ, সৈয়দ হোসেন, আমিনুল ইসলাম সর্দার,   জাফর আহমদ, মো. কামাল, মো. আনিস, মো. মজিবুল হক সহ কমিটির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
মতবিনিময় সভায় করদাতা সুরক্ষা পরিষদ তাদের কিছু প্রস্তাবনা মেয়র এর নিকট উপস্থাপন করেন। মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র   আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বিগত মেয়রের সময়ের প্রায় ১৪ হাজার আপিল নিষ্পত্তি করা হয়েছে। সে আপিলে  হতদরিদ্র ও দরিদ্র হোল্ডারদের পৌরকর মওকুফ করা হয়েছে। এমনকি সীমিত আয়ের হোল্ডারদের বিষয়টি বিশেষ বিবেচনা করা হয়েছে। সকলকেই আপিলের আওতায় কমবেশি ছাড় দেয়া হয়েছে। সাধারন নাগরিকদের উপর অন্যায়ভাবে পৌরকর চাপিয়ে দেয়ার মনমানসিকতা আমি পোষন করিনা। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সরকারের আইন দ্বারা পরিচালিত হয়। পৌরকর ধার্য্য করার কোন এখতিয়ার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নেই। আইনের বাধ্যবাধকতায় ৫ বছর অন্তর অন্তর পৌরকর পূনঃমুল্যায়নের আওতায় বর্তমানে পুনঃমুল্যায়নের কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পুনঃমূল্যায়ন শেষে হোল্ডারদেরকে  অবহিত করা হবে। হোল্ডারগণ আপিলের আশ্রয় নিলে তা নিষ্পত্তির পরই কর ধার্য্য হবে। এ বিষয়টিকে ভিন্ন দৃষ্টিতে মূল্যায়ন করার কোন সুযোগ আছে বলে মনে করি না। আশা করি নগরবাসী তাদের শতভাগ সেবার স্বার্থে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ