ঢাকা, রোববার 07 May 2017, ২৪ বৈশাখ ১৪২৩, ১০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

বগুড়ায় অপহরণ নাটক সাজাতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন

বগুড়া অফিস: বগুড়ায় পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে ভাই ও ভাতিজাদেরকে ফাঁসাতে অপহরন নাটক সাজাতে গিয়ে এক নারী নিজেই ফেঁসে গেছেন। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি স্বীকার করেছেন ২য় স্বামী ও ছেলের সহযোগিতায় সাড়ে তিন বছরের শিশু সন্তানকে নিজেই লুকিয়ে রাখেন। পরে পুলিশ ওই নারী, তার ২য় স্বামী ও ছেলেকে গ্রেফতার করেছে। রবিবার দুপুরে বগুড়ার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেসব্রিফিং-এ এতথ্য জানান পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান। প্রেস ব্রিফিং-এ জানানো হয়, শনিবার দুপুরে বগুড়া শহরের ফুলদীঘি এলাকার নিলুফা শারমিন রিতা (৩৫) নামের এক নারী শাজাহানপুর থানায় অভিযোগ করেন তার সাড়ে তিন বছরের শিশু কন্যা মেঘলা মানতাসা নকসীকে কে বা কারা অপহরন করেছে। তিনি পুলিশকে জানান, শনিবার বেলা ১১টায় তিনি মেয়েকে আনতে ফুলদীঘি মডেল কিন্টারগার্ডেন স্কুলে যান। মেয়েকে স্কুলের মাঠে রেখে পরিচালকের কক্ষে কিছু সময় কাটানোর পর বাইরে এসে দেখতে পান তার মেয়ে স্কুল মাঠে নেই। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার করতে তৎপর হয়ে ওঠে। পুলিশী তৎপরতায় শনিবার রাত ১১টায় শিশুটিকে কে বা কারা ফুলদীঘি এলাকায় রিতার বাবার বাড়ির সামনে রেখে যায়। পরে পুলিশ শিশুটিকে থানায় নিয়ে আসে। অপহরনের ঘটনাটি নিয়ে সন্দেহ হওয়ায় পুলিশ অভিযোগকারী নিলুফা শরমিন রিতা ও তার ছেলে ফাহিম নুরে আলমকে (১৩) থানায় নিয়ে যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ