ঢাকা, রোববার 07 May 2017, ২৪ বৈশাখ ১৪২৩, ১০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

নগরীর পানিবদ্ধতা নিরসনে কর্ণফুলী নদী দখলমুক্ত ও ড্রেজিং করতে হবে

চট্টগ্রাম অফিস : নগরীর অব্যাহত জলাবদ্ধতা নিরসনে কর্ণফুলী নদী দখলমুক্ত ভরাট খাল সংস্কার নদী ড্রেজিং, ফুটপাত দখল মুক্ত করার দাবি জানিয়ে চট্টগ্রাম নাগরিক উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের এক সভা গত  ৫ মে, শুক্রবার বিকেলে নগরীর খতিব বাড়ীস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে বিভিন্ন পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে এ কথা বলে। চট্টগ্রাম নাগরিক অধিকার সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসেন সমস্যা সমূহ চিহ্নিত করতে হবে। নগরীর আশপাশের খাল সমূহকে ড্রেজিং করতে হবে। নালা সমূহকে পানি নিষ্কাসনের জন্য পরিষ্কার রাখতে হবে। চট্টগ্রামের রাস্তাঘাটের বর্তমানে করুণ দশা। ধুলাবালি বায়ু ও শব্দ দূষণে নগরবাসী নাকাল। এই অবস্থা থেকে উত্তরণ করতে হবে। শব্দ দূষণ বায়ু দূষণ থেকে নগর বাসীকে রক্ষার দায়িত্ব স্থানীয় প্রশাসনের। বক্তাগণ এই ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ চায়। বক্তাগণ আরো বলেন সামনে পবিত্র রমযান মাস আসছে। এই মাসকে সামনে রেখে অসাধু ব্যবসায়ীরা এখন থেকে দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন মূল্য বাড়িয়ে জনভোগান্তি বাড়াচ্ছে। দ্রব্যমূল্যের নিয়ন্ত্রণের জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে নজর দারি বাড়িয়ে পবিত্র রমযানে মূল্য বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ রাখার দাবি জানিয়েছেন। সভায় পেশাজীবী নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মুসলিম হাইস্কুলের প্রবিণ শিক্ষক কবি সালাহ উদ্দিন, বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি  মাহ্মুদুল হক আনসারি, মোহাম্মদ হারুন, ক্যাব নেতা মোহাম্মদ জানে আলম, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসেন মুরাদ, মদিনা মিশনের চেয়ারম্যান মাওলানা নিজাম উদ্দিন আশরাফি, মোহাম্মদ ওমর ফারুক নঈমি, যিকরুল হাবিব ওয়াহেদ, ডাক্তার সুভাষ চন্দ্র সেন, মোহাম্মদ মিনহাজ উদ্দিন, কমরেড মোহাম্মদ আলী, অধ্যক্ষ সেলিমুজ্জামান মজুমদার, এস.এম শিবলী নোমান, মুজাহের ইসলাম চৌধুরী, মি. মুহিম খাঁন প্রমুখ, অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন   শেখ মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ, সভা শেষে বিশেষ দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা নিজাম উদ্দিন আশরাফি।
 বক্তাগণ আরো বলেন নগরকে নান্দনিক ও পরিচ্ছন্ন রাখতে সিটি কর্পোরেশনকে নগরবাসিকে সাহায্য করতে হবে। প্রশাসনের একার পক্ষে প্রায় ৬০ লক্ষ মানুষের নগরিকে জনগণের সাহায্যে ছাড়া পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব না। তাই নাগরিক ও সিটি কর্পোরেশন সম্মিলিতভাবে শহরের পরিচ্ছন্ন জীবন রক্ষায় অবদান রাখতে হবে। নেতৃবৃন্দ চট্টগ্রাম শহরে উন্নয়ন পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নে প্রশাসনের সর্বস্তরের সমন্বয় দাবি করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ