ঢাকা, রোববার 07 May 2017, ২৪ বৈশাখ ১৪২৩, ১০ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

রমযানের আগেই সুপ্রিম কোর্ট থেকে মূর্তি সরানোর আল্টিমেটাম ওলামা লীগের

স্টাফ রিপোর্টার : রমযানের আগে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গন থেকে গ্রিক মূর্তি অপসারণ, হেফাযতের ধোয়া তুলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক পাঠ্যপুস্তকে পুনর্বহালকৃত প্রবন্ধ-কবিতা বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল,  পবিত্র দ্বীন ইসলাম উচ্চ আদালতে বহাল রাখাসহ ১২ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগসহ সরকার পক্ষের সমমনা ১৩টি ইসলামী দল। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। রোজার আগে সুপ্রিম কোর্টের সামনে থাকা গ্রিক দেবীর মূর্তি না সরালে মুসলিমরা ঈদের নামায বর্জন করবে বলে জানিয়েছে আওয়ামী ওলামা লীগ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করে ওলামা লীগের সভাপতি মাওলানা আখতার হুসাইন বিন বুখারী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা। আপনি দেশের মানুষের সেন্টিমেন্ট বোঝেন। এ জন্যই আপনি জননেত্রী। আর তাই জাসদ নেতা ইনুকে মন্ত্রিসভা থেকে বের করে দেন। ওদের আর নৌকায় উঠতে দেওয়া যাবে না। তিনি বলেন, স্বাধীনতা উত্তর জাসদীয় ষড়যন্ত্র আবার নতুন করে শুরু হয়েছে। আলেম ও ইসলামি অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে ইনুরা মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়েছে। এরা আওয়ামী লীগের ভোটব্যাংক নষ্ট করতে চায়। এদের ১% ভোটও নেই। তাই এদের দায়ভার আমরা বহন করতে পারি না। তাই এদেরকে এখনই মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়া হোক। মাওলানা আখতার হুসাইন বিন বুখারী আরও বলেন, সংস্কৃতির জন্য নতুন করে স্বাধীনতা সংগ্রাম করতে হবে ড. সনজীদা খাতুনের এ বক্তব্য মহান স্বাধীনতা সংগ্রাম তথা মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরোধী। ড. সনজীদাকে রাষ্ট্রদ্রোহী মামলায় গ্রেফতার করতে হবে।
বক্তারা দেশে ৫৬০টি মসজিদ তৈরীর প্রকল্প  নেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন  , গত ২৭ এপ্রিল ইসলাম বিদ্বেষী বামপন্থী নাস্তিক্যবাদী শিক্ষাবিদদের সাথে বৈঠক করে শিক্ষামন্ত্রীর নেতৃত্বে শিক্ষা মন্ত্রণালয় পাঠ্যপুস্তক থেকে পুণরায় সম্মানিত ইসলামী চেতনা সম্বলিত গল্প, প্রবন্ধ, কবিতা বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। হেফাযতের দোহাই দিয়ে এসব প্রবন্ধ বাদ দিতে বাংলা বইয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে নাস্তিকদের মুক্তমনা ব্লগের অন্যতম সংগঠক  ইসলাম বিদ্বেষী কট্টর বামপন্থী শ্যামলী নাসরীন চৌধুরীকে। এসব হলো শিক্ষাবিদ নামধারী বামপন্থী নাস্তিক্যবাদী, হিন্দুত্ববাদীদের চক্রান্তে দেশবাসী মুসলমানদের ক্ষেপানোর সরকারবিরোধী গভীর চক্রান্ত। বক্তারা বলেন, দেশের প্রধান নির্বাহী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী পাশাপাশি আইনমন্ত্রী সুপ্রিমকোর্টের সামনে থেকে মূর্তি সরানোর কথা বারবার বলার পরও সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যমূলকভাবে মূর্তি সরানো হচ্ছেনা।
বক্তারা বলেন, ভারতের মতো বাংলাদেশেও গরুর গোশত খাওয়া নিয়ে ধারাবাহিকভাবে ষড়যন্ত্র চলছে। অথচ গরুর গোশত খাওয়া হালাল, যা মহান আল্লাহ পাক উনার বিধান। দেশের বিভিন্ন হোটেলে ‘নো বীফ’ লিখে গরুর গোশত খেতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। এ তালিকায় স্টার কাবাবের সকল শাখা, ফার্মগেটের কাসুন্দি হোটেল, পুরান ঢাকার রাজ্জাক হোটেলের মতো ছোট বড় অনেক হোটেল রেস্টুরেণ্ট রয়েছে। বক্তারা বলেন, ভাড়াটিয়ার টিভি না থাকা সন্ত্রাসীর আলামতএটা সম্পূর্ণ ভুল কথা। পুলিশ প্রধানের এ কথা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। কারণ দু একটি ব্যতিক্রম ছাড়া সন্ত্রাসীরা দেশ বিদেশের সন্ত্রাসী বিরোধী খবরাখবরের জন্য শুধু টিভিই দেখেনা অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি ব্যবহার করে। বক্তারা বলেন, নাস্তিক্যবাদী ইনু-বাদলরা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে আবারো স্বাধীনতা উত্তর জাসদীয় ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এসব জনবিচ্ছিন্নরা আজ আওয়ামী লীগের কাধে ভর করে মন্ত্রী-এমপি হয়ে আওয়ামী লীগকে পবিত্র দ্বীন ইসলাম ও আলেমদের থেকে দূরে সরানোর ষড়যন্ত্র করছে। এরা বঙ্গবন্ধুর সাথে এরা দুর্ব্যবহার করেছিল। বঙ্গবন্ধুর চামড়া দিয়ে তারা ডুগডুগি বানাতে চেয়েছে। আলেমদের সাথে আওয়ামী লীগের সম্পর্ক ভাল হোক এটা তারা চায় না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ