ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 May 2017, ২৮ বৈশাখ ১৪২৩, ১৪ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচেই কাল মাঠে নামছে বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার : আগামীকাল থেকে আয়ারল্যান্ডে শুরু হচ্ছে ত্রিদেশীয় সিরিজ। এই সিরিজে অংশ নিবে বাংলাদেশ, নিউজিল্যান্ড আর স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড। প্রথম ম্যাচেই আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকেল চারটায় শুরু হবে ম্যাচটি। এই সিরিজে দুটি দলের বিপক্ষে দুটি করে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সর্বশেষ আয়ারল্যান্ড সফর করেছিল ২০১০ সালে। ওই সফরে দুটি ওয়ানডে খেলে প্রথমটি হার মানলেও পরেরটি জিতেছিল বাংলাদেশ দল। আইরিশদের সঙ্গে মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশ অবশ্য সফল। সাতটি ওয়ানডে খেলে পাঁচটিতেই জয় পেয়েছে টাইগাররা। এই সিরিজটি বাংলাদেশের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে বিশ্বকাপে সরাসরি কোয়ালিফাই করার লড়াইয়ে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ বাংলাদেশের সামনে। ৯১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে সাতে থেকে ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু করবে বাংলাদেশ দল। ত্রিদেশীয় সিরিজে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড উভয় দলের বিপক্ষে দুটি করে মোট চারটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। মাশরাফি বিন মুর্তজার দলের সামনে হাতছানি প্রথমবারের মতো র‌্যাংকিংয়ে ছয়ে ওঠার। ৯৩ পয়েন্ট নিয়ে বর্তমানে ছয়ে আছে শ্রীলংকা। ত্রিদেশীয় সিরিজে ভালো করে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার পথে আরও এগোনোর সুযোগ বাংলাদেশের সামনে। তাই ১২ থেকে ২৪ মে ডাবলিনে আয়ারল্যান্ড ও নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজে ভালো করতে চায় বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ম্যাচ জিতলেই শ্রীলংকাকে টপকে ছয়ে উঠে যাবে বাংলাদেশ। তখন বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৯৪। আর চারটি ম্যাচই জিতলে পয়েন্ট হবে ৯৭। 

বাংলাদেশের সামনে ওপরে ওঠার হাতছানির পাশাপাশি নিচে নেমে যাওয়ার শঙ্কাও থাকছে। ৮৮ পয়েন্ট নিয়ে র‌্যাংকিংয়ের আটে আছে পাকিস্তান। বাংলাদেশ যদি আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একটি আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি ম্যাচই হারে তখন পয়েন্ট হবে ৮৭। অর্থাৎ বাংলাদেশ তখন নেমে যাবে আটে। চারটি ম্যাচই হারলে পয়েন্ট হবে ৮৩। দেশে থাকতেই অধিনায়ক মাশরাফি বলে গেছেন, র‌্যাঙ্কিংয়ের ব্যাপারটি এই সিরিজে তাদের মাথায় থাকবে। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি জয়ের সঙ্গে নিউ জিল্যান্ডের কাছে দুই হারে বাংলাদেশ হারাবে ১ পয়েন্ট। নিউ জিল্যান্ডের কাছে দুই হারের সঙ্গে স্বাগতিকদের বিপক্ষে এক পরাজয়ে ৮৭ পয়েন্ট নিয়ে মাশরাফিদের নেমে যেতে হবে পাকিস্তনের নিচে। চার ম্যাচেই হারলে পয়েন্ট হবে ৮৩। ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে কোন আট দল, সেটি নির্ধারিত হবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর। স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও র‌্যাংকিংয়ের অন্য শীর্ষ সাত দল পাবে সরাসরি খেলার টিকেট। বাকি দুই দলকে আসতে হবে বাছাইপর্ব খেলে। ত্রিদেশীয় সিরিজের পর ১ জুন ইংল্যান্ডে শুরু চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেও পয়েন্ট বাড়ানোর সুযোগ থাকছে বাংলাদেশের সামনে। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ আর ইংল্যান্ডে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভালো করতে গত মাসের শেষ দিকে ঢাকা ছাড়ে বাংলাদেশ দল। ইংল্যান্ডের সাসেক্সে ১০ দিনের কন্ডিশনিং ক্যাম্প শেষ করে বাংলাদেশ দল এখন আয়ারল্যান্ডে। কাল ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড। এছাড়া ১৭ মে টাইগারদের দ্বিতীয় ম্যাচের প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। ১৯ মে আবার আয়ারল্যান্ড এবং ২৪ মে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ খেলে ২৫ মে ইংল্যান্ডে ফিরে যাবে বাংলাদেশ দল।

ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের র‌্যাংকিংয়ের উত্থান-পতন : বাংলাদেশ যদি চার ম্যাচের সবগুলোই জেতে তাহলে রেটিং পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯৭। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি ম্যাচ জিতলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯৪। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচেই জয় এবং নিউজিল্যান্ডের কাছে দুই ম্যাচেই হারলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ৯০। আয়ারল্যান্ডের কাছে একটিতে হারলে এবং নিউজিল্যান্ডের কাছে দুটিতেই যদি হেরে যায় তাহলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ৮৭। যদি ত্রিদেশীয় সিরিজের সবগুলো ম্যাচেই হেরে যায়, তাহলে বাংলাদেশের পয়েন্ট দাঁড়াবে ৮৩। বাংলাদেশ যদি আয়ারল্যান্ডকে দুই ম্যাচেই এবং নিউজিল্যান্ডকে একটিতে হারাতে পারে, তখন বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার জন্য লড়াই করতে হবে অষ্টম ও নবম স্থানে থাকা পাকিস্তান এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। পাকিস্তানের রেটিং পয়েন্ট এখন ৮৮। ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে নয পয়েন্ট এগিয়ে রয়েছে তারা। নিউজিল্যান্ড যদি এই সিরিজে বাংলাদেশের কাছে দুই ম্যাচেও হেরে যায়, তাহলেও তাদের চতুর্থ অবস্থানের পরিবর্তন হবে না। রেটিং পয়েন্ট কমে যাবে শুধু। ১১৫ থেকে নেমে আসবে ১১২তে। তবে যদি আয়ারল্যান্ডের কাছে একটি ম্যাচে হেরে যায়, তাহলে রেটিং পয়েন্ট কমে দাঁড়াবে ১০৯-এ এবং নেমে যাবে ইংল্যান্ডের নিচে, থাকবে পঞ্চম স্থানে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ