ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 May 2017, ২৮ বৈশাখ ১৪২৩, ১৪ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

আদর্শ রাষ্ট্র ও জাতি গঠনে কওমী আলেমদের খেদমত স্মরণীয় হয়ে থাকবে -মাওলানা শাহ আতাউল্লাহ

 

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত মাওলানা হাফেজ শাহ আতাউল্লাহ ইবনে হাফেজ্জী হুজুর. বলেছেন, দারুল উলুম দেওবন্দ থেকে শুরু করে প্রায় দেড়শত বছর যাবৎ কওমী মাদরাসার আলেম ওলামাগণ সারা দুনিয়ায় ধর্মীয় ও সামাজিক খেদমতসহ বিভিন্ন খেদমত আঞ্জাম দিয়ে আসছেন। কওমী ওলামায়ে কেরাম জনগণের খেদমতে সর্বদা নিয়োজিত তাই তাদের সাথে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের আত্মার সম্পর্ক রয়েছে। এ সম্পর্ক অটুট রাখতে সারা বছর কুরআন-হাদিসের এলেম অর্জনের পর এখন তা জাতির কাছে তা পৌঁছে দিতে কওমী মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষকরা দেশ দেশান্তরে দাওয়াতি কাজে বেরিয়ে যাচ্ছেন। আদর্শ রাষ্ট্র ও জাতি গঠনে কওমী আলেমদের ধর্মীয় ও সামাজিক খেদমত দেশবাসীর কাছে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

গতকাল বুধবার বাদ জোহর রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর জামিয়া নুরিয়া ইসলামিয়ার ১৪৩৭-৩৮ হিজরী শিক্ষাবর্ষের সমাপনী অনুষ্ঠানে ওলামায়ে কেরাম ও মাদরাসার ছাত্রদের উদ্যেশে তিনি এসব কথা বলেন। এতে উপস্থিত ছিলেন, শাইখুল হাদিস মাওলানা সুলাইমান নোমানী, মাদরাসার শিক্ষাসচিব মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা সাজেদুর রহমান, মাওলানা সানা উল্লাহ, মাওলানা মুফিজুর রহমান, মুফতি শহিদুল ইসলাম, মুফতি ফখরুল ইসলাম, মাওলানা সুলতান মহিউদ্দিন, মুফতি আকরাম হুসাইন ও হাফেজ আবুল কাসেম  প্রমুখ।

মাওলানা আতাউল্লাহ আরো বলেন, ধর্মীয় ও নৈতিক  শিক্ষা, উত্তম আমলÑআখলাক এবং কোরআন সুন্নাহর অনুশীলনের মাধ্যমে সৎচরিত্রবান নাগরিক দেশ ও জাতিকে উপহার দেয়াই কওমী শিক্ষার মুল লক্ষ্য। এ লক্ষ্যেই কওমী মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষকরা নিরলস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ