ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 May 2017, ২৮ বৈশাখ ১৪২৩, ১৪ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

এটর্নি জেনারেলের বক্তব্য  অপ্রত্যাশিত 

স্টাফ রিপোর্টার : সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের বিরুদ্ধে আপিলের শুনানিতে সাত বিচারপতির সবাইকে যুক্ত না করা হলে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের অনাস্থা জানিয়ে মামলা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণায় রিট আবেদনের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ ‘অপ্রত্যাশিত’ বলে মন্তব্য করেছেন। অন্যদিকে গুরুত্বপূর্ণ মামলা বিবেচনায় শুনানিতে আপিল বিভাগের সকল বিচারপতিকে তিনি চাইতে পারেন বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, আপিল বিভাগের সাত বিচারপতির উপস্থিতিতে আপিল শুনানি করা এবং শুনানির জন্য যে সময়ের আবেদন এটর্নি জেনারেল করেছেন তা কেবলই একটা অজুহাত। এটা বিলম্বিত করার একটা উদাহরণ। তাই এটর্নি জেনারেলের এই অজুহাত অপ্রত্যাশিত।

এই আইনজীবী আরো বলেন, একটি মামলার শুনানিতে কয়জন বিচারপতি থাকবেন বা কয়জন বিচারপতি নিয়ে বেঞ্চ গঠিত হবে তা প্রধান বিচারপতির এখতিয়ার। তাই এখানে কোন শর্ত দিয়ে আবেদন করলে তা সঠিক নয়।

তবে আইনজীবী খুরশিদ আলম খান শুনানির জন্য সময় প্রার্থনা করা কিংবা গুরুত্বপূর্ণ মামলা বিবেচনায় শুনানিতে আপিল বিভাগের সকল বিচারপতিকে এটর্নি জেনারেল চাইতে পারেন বলে মনে করেন। এটর্নি জেনারেলের কোন আবেদন থাকলে আদালতের কাছে তিনি তা করতেই পারেন। তা বিবেচনা করা একান্তই আদালতের ব্যাপার।

গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা জাতীয় সংসদে ন্যস্ত করে আনা সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে সরকারের করা আপিলের দ্বিতীয় দিনের শুনানি শেষ হয়। আগামী ২১ মে এ আপিলের পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য রয়েছে। ওইদিন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার ( এস কে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চে শুনানিতে এটর্নি জেনারেলের সাথে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় ঘটে। এটর্নি জেনারেল সময় চেয়ে আবেদন করলে আদালত তা নাকচ করে শুনানির নির্দেশ দেন। অন্যদিকে আপিল বিভাগের সাত বিচারপতির বেঞ্চে শুনানির আবেদনটিও আদালতে অগ্রাহ্য হয়। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে এটর্নি জেনারেল জানান তিনি আদালতের প্রতি অনাস্থা দিতে বাধ্য হবেন এবং নিজেকে প্রত্যাহার করে নিবেন। 

শুনানি শেষে এটর্নি জেনারেরল মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, সাতজন বিচারকের সবাইকে যদি সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের শুনানিতে যুক্ত না করা হয় তবে এ মামলা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার কথা বলেছি।

তিনি বলেন, গত তারিখে (সোমবার) প্রধান বিচারপতি বলেছেন, সব বিচারপতিকে যুক্ত করেই এ মামলাটি শুনবেন। আজকে একপর্যায়ে তিনি বললেন, পাচঁজনই শুনবেন। তখন আমি বললাম, আপনারা যদি আপনাদের সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে না আসেন তবে আমি অনাস্থা দিতে বাধ্য হবো। শুনানি শেষে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

গত বছর ৫ মে ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিটের নিষ্পত্তি করে সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বে তিন সদস্যের বৃহত্তর বেঞ্চ রায় ঘোষণা করেন। বেঞ্চের অন্য দুই বিচারপতি হলেন বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল। তবে সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতির রায় হওয়ায় ষোড়শ সংশোধনী আইনটি বাতিল হয়ে যায়। হাইকোর্টের দেয়া ওই রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ২৮ নবেম্বর আপিল করে সরকার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ