ঢাকা, মঙ্গলবার 16 May 2017, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ১৯ শাবান ১৪৩৮ হিজরী
Online Edition

কোমি-ট্রাম্প কথোপকথন নিয়ে রিপাবলিকান শিবিরে অস্বস্তি

১৫ মে, রয়টার্স, নিউইয়র্ক টাইমস : সদ্য বরখাস্ত হওয়ার এফবিআই প্রধান জেমস কোমির সঙ্গের ফোনালাপের ঘটনায় বিব্রত ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টি। ওই ফোনালাপের অনুলিপি জমা দিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে চাপ দিচ্ছেন তার দলের নীতিনির্ধারকরা। গতকাল সোমবার বার্তা সংস্থার এক প্রতিবেদন থেকে একথা জানা গেছে।
গত মঙ্গলবার হিলারি ক্লিনটনের ইমেইল ফাঁসের তদন্ত প্রভাবিত করার অভিযোগ তুলে কোমিকে বরখাস্ত করা হয়। এর পরপরই তার দুজন সহকর্মীর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার সপ্তাহখানেক পর ট্রাম্প কোমিকে হোয়াইট হাউসে ব্যক্তিগত ডিনারে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন সেই সময় ট্রাম্পের প্রতি আনুগত্যের অঙ্গীকার করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন কোমি। বলেছিলেন, তিনি প্রেসিডেন্টের প্রতি সৎ থাকবেন। সেদিনের আলোচনা বরখাস্তের একটি কারণ হতে পারে বলে অপসারিত এফবিআই প্রধান কোমি মনে করছেন।
শুক্রবার ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় কোমিকে হুমকি দেন। তিনি টুইটার পোস্টে লেখেন, সংবাদমাধ্যমের কাছে কিছু বলার আগে কোমির বরং মনে করা উচিত যে আমাদের আলোচনার কোনও অডিও অনুলিপি নেই। ট্রাম্পের ওই টুইটের ১ ঘণ্টা পরেই উইকিলিকস তাদের টুইটার অ্যাকাউন্টে অডিও অনুলিপিটির জন্য পুরস্কার ঘোষণা করে। সবমিলে কোমি-ট্রাম্প ফোনালাপ নিয়ে ঝড় ওঠে বিতর্কের। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রিপাবলিকানরাও এই পরিস্থিতিতে বেশ বিব্রত। সাউথ ক্যারোলিনার রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেন, হোয়াইট হাউসের অবশ্যই্ এই পরিস্থিতি স্পষ্ট করা উচিত যে আসলেই কোনো কথোপকথনের অনুলিপি আছে কিনা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম এনবিসিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ‘এটা হালকা ভাবে নেওযার কিছু না। যদি সত্যি কোন অডিও অনুলিপি থেকে থাকে তবে সেটা অবশ্যই জমা দিতে হবে।’
কোমিকে বরখাস্তের পরই রাজনৈতিক বিতর্ক উসকে দিয়েছিলেন ট্রাম্প। ডেমোক্র্যাটরাদাবি করছেন, ট্রাম্পের রুশ সংযোগ নিয়ে তদন্তের কারণেই কোমিকে বরখাস্ত করেছে প্রশাসন। হোয়াইট হাউসের এক মুখপাত্র জানান, দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই এফবিআইপ্রধান জেমস কোমিকে বরখাস্তের কথা বিবেচনা করছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সারাহ হাকাবি স্যান্ডার্স নামের মুখপাত্র সাংবাদিকদের বলেন, গত বছর বেশ কয়েকটি ভুল পদক্ষেপ নেয়ায় কোমির ওপর আস্থা হারান ট্রাম্প। এই প্রেক্ষাপটেআরেক রিপাবলিকান সিনেটর মাইক লি বলেন, ‘যদি সত্যিই অনুলিপি থেকে থাকে তবে অবশ্যই সেটা তলব করা হবে এবং হোয়াইট হাউসকে সেগুলো দিতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ